advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সঞ্চয়পত্র কেনাবেচায় নতুন নিয়ম মানতে ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা

নিজস্ব প্রতিবেদক
২০ জুলাই ২০২২ ০৭:৪৪ পিএম | আপডেট: ২১ জুলাই ২০২২ ১২:৩৩ এএম
প্রতীকী ছবি
advertisement

জাতীয় সঞ্চয়পত্র কেনাবেচার ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোকে নতুন নিয়ম মেনে চলতে হবে। আজ বুধবার বাংলাদেশ ব্যাংক এ সংক্রান্ত একটি সার্কুলার জারি করে নতুন নিয়ম অনুসরণের জন্য ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দিয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়, যিনি সঞ্চয়পত্র কিনতে চান, তার আবেদন ইস্যু অফিস কর্তৃক গ্রহণের পর ওই তারিখ থেকে পরবর্তী এক কর্ম দিবসের মধ্যেই ক্রেতার দাখিলকৃত চেক ক্লিয়ারিংয়ের জন্য উপস্থাপন করতে হবে। এছাড়া গ্রাহক কর্তৃক ডেবিট অথরিটির মাধ্যমে সঞ্চয়পত্র কেনার জন্য আবেদন করা হলে, গ্রাহকের হিসাব ডেবিট করার তারিখ এই গ্রাহকের অনুকূলের সংশ্লিষ্ট ইন্সট্রুমেন্ট ইস্যু করতে হবে।

advertisement 3

বাংলাদেশ ব্যাংক আরও বলছে, জাতীয় সঞ্চয় স্কিম অনলাইন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে বিক্রিত সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ও মেয়াদপূর্তিতে আসল বা মূল অর্থ প্রদেয় হওয়ার তারিখেই ইন্টিমেশন প্রদান নিশ্চিত করতে হবে।

advertisement 4

এছাড়া গ্রাহকের সঞ্চয়পত্র ক্রয় পরবর্তী যেকোনো আবেদন (যেমন- নমিনি পরিবর্তন, হিসাব নম্বর পরিবর্তন, মোবাইল নম্বর পরিবর্তন, ইএফটি সংক্রান্ত সমস্যা ইত্যাদি) গ্রহণের তারিখ থেকে সর্বোচ্চ তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংক উল্লেখ করেছে, জাতীয় সঞ্চয় অধিদফতরের আওতাধীন জেলা বা ব্যুরো সঞ্চয় অফিস ও জাতীয় সঞ্চয় বিশেষ ব্যুরোর দায়িত্বপ্রাপ্ত লিংক ব্যাংক, অফিস অথবা ব্যুরোর গ্রাহকদের চেক যথাসময়ে ক্লিয়ারিং করে সংশ্লিষ্ট অফিসকে অবহিত করবে। এছাড়া সঞ্চয়পত্র কেনার নিমিত্তে ক্লিয়ারিংয়ের জন্য উপস্থাপিত চেক যথোপযুক্ত কারণ ব্যতীত ফেরত দেওয়া যাবে না। এছাড়া গ্রাহকের অনুকূলে ইলেকট্রনিক ফান্ড ট্রান্সফার (ইএফটি) ইন্সট্রাকশনের মাধ্যমে পাঠানো সঞ্চয়পত্রের মুনাফা ও আসল বা মূল ফেরত দেওয়া যাবে না।

বাংলাদেশ ব্যাংক আরও বলেছে, সঞ্চয়পত্র বিক্রয়কালে ইস্যুকারী ব্যাংক বা শাখা কর্তৃক ওই ব্যাংকে বা শাখায় গ্রাহককে হিসাব খোলার জন্য বাধ্য করা যাবে না। এছাড়া নিরাপত্তার স্বার্থে একজনের বা ব্যাংকের এক শাখার ইউজার আইডি অন্য ব্যক্তি বা অন্য শাখা কর্তৃক ব্যবহার করা যাবে না।

advertisement