advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ইকো পার্ক না করার দাবিতে ঝাড়ু মিছিল

ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি
৫ আগস্ট ২০২২ ০৫:৩৭ পিএম | আপডেট: ৫ আগস্ট ২০২২ ০৯:৩৩ পিএম
ময়মনসিংহের ভালুকায় ইকো পার্ক বন্ধের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল। ছবি: আমাদের সময়
advertisement

ময়মনসিংহের ভালুকায় প্রস্তাবিত ইকো পার্ক বন্ধের দাবিতে ঝাড়ু মিছিল বের করেছেন কয়েকটি গ্রামের মানুষ। আজ শুক্রবার বিকেলে উপজেলার হবিরবাড়ি ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের হাজারো নারী-পুরুষ ঝাড়ু হাতে নিয়ে ওই বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেন। বাপ-দাদার ভিটা-মাটি রক্ষার দাবিতে তারা এ মিছিল করেছেন বলে জানান।

জানা যায়, হবিরবাড়ি ইউনিয়নের ১ হাজার ৭১ একর জমি নিয়ে একটি ইকো পার্ক নির্মাণের প্রস্তাব দিয়েছে স্থানীয় বন বিভাগ। প্রস্তাবিত ইকোপার্কের ভেতরে কয়েক হাজার মানুষের বসতবাড়ি রয়েছে। তাই ওই প্রস্তাবিত ইকো পার্কের কার্যক্রম বন্ধের দাবিতে তারা বিক্ষোভ মিছিল করেন।

advertisement

মিছিল চলাকালে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে দীর্ঘ যানজট লেগে যায়। দুই পাশে শত শত গাড়ি আটকে পড়ে। ভালুকা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল হোসেনের সহযোগিতায় মহাসড়ক থেকে সাধারণ জনতাদের সরিয়ে দেওয়া হলে দুই পাশে আটকে যাওয়া যানবাহনের চলাচল শুরু হয়।

মিছিলে অংশ নেওয়া কাদির বলেন, ‘বন বিভাগ এখানে ইকো পার্ক করার ঘোষণা দিয়েছে। এখানে আমাদের বাপ দাদার ভিটা, এই ভিটা মাটি ছেড়ে আমরা কোথাও যাব না। যে কোনো মূল্যে এখানে ইকো পার্ক হতে দেবো না।’ 

মিছিলে অংশ নেওয়া জমিলা খাতুন বলেন, ‘আমার স্বামীর ও বাপের ভিটা এই দাগে এখানে। আমার স্বামীর ও বাবা-মায়ের কবর, বাড়ি-ঘর রেখে আমরা কোথাও যাব না।’ 

হবিরবাড়ী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হানিফ মোহাম্মদ নিপুন বলেন, ‘আমরা ইকোপার্ক চাই না, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক চাই। হবিরবাড়ীতে ইকোপার্ক স্থাপনের ফলে কয়েকশ বাড়িঘর উচ্ছেদ করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী লাখ লাখ রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দিয়েছেন। সেই মমতাময়ী মা আমাদের পৈত্রিক ভিটা, কবরস্থান উচ্ছেদ করতে পারেন না।’ 

হবিরবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তোফায়েল আহম্মেদ বাচ্চু বলেন, ‘এই ইকো পার্ক করতে ১ হাজার ৭১ একর ৪৩ শতাংশ জমি নেওয়ার প্রস্তাব করা হয়েছে। যেখানে তিনটি প্রাথমিক বিদ্যালয়, একটি মাদ্রাসা ও অনেকগুলো মসজিদ, কবরস্থানসহ অসংখ্য বাড়িঘর আছে। আমি খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যাই। এমপি মহোদয় আগামী রোববার আমাদের নিয়ে বসবেন। যাতে মানুষের ক্ষতি না হয় সেই লক্ষ্যে কাজ করবেন বলে আমাকে আশ্বস্ত করেছেন।’

advertisement