advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র বানিয়েছে আওয়ামী লীগ : ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
৭ আগস্ট ২০২২ ০৭:৩৯ পিএম | আপডেট: ৮ আগস্ট ২০২২ ১২:৩৪ এএম
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর । পুরোনো ছবি
advertisement

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমাদের দুর্ভাগ্য যে, দেশের কোনো প্রতিষ্ঠান ভালোভাবে গড়ে ওঠেনি। ভালো স্বাস্থ্য ও শিক্ষা ব্যবস্থা গড়ে ওঠেনি এখানে। শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের ব্যবস্থা গড়ে ওঠেনি। ফলে আমাদের বাংলাদেশ ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। এর পেছনে বড় অবদান আওয়ামী লীগের।

আজ রোববার বিকেলে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জাতীয় প্রেসক্লাবে ৩৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এই আলোচনা সভার আয়োজন করে ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ড্যাব)।

advertisement 3

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পর তারাই (আওয়ামী লীগ) ক্ষমতায় এসেছিল। কিন্তু সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার পরিবর্তে তারা একদলীয় শাসন ব্যবস্থা কায়েম করেছিল। তারা মানুষের বাক স্বাধীনতা কেড়ে নিয়েছিল। তারই ধারাবাহিকতায় আজো আওয়ামী লীগ একদলীয় শাসন ব্যবস্থা গড়ে তোলার চেষ্টা করছে।

advertisement 4

মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে দেশে অবিশ্বাস্যভাবে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। মানুষ এমনিতেই হিমশিম খাচ্ছে। ঠিক এই সময়ে জ্বালানির দাম বৃদ্ধি চরম অমানবিক কাজ। এই সরকার ভয়াবহ। মানুষকে দেয়ালে ঠেকিয়ে দিয়েছে সরকার।

ড্যাবের সভাপতি অধ্যাপক ডা. হারুন আল রশিদের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ডা. মেহেদী হাসান ও ডা. মো. আবুল কেনানের যৌথ পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন রিয়াজুল ইসলাম রিজু, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের কাদের গণি চৌধুরী, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা শামীমুর রহমান শামীম, ডা. শহীদুল আলম, জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের প্রকৌশলী মাহবুব আলম, ড্যাবের ডা. মো. আবদুস সালাম, ডা. এমএ সেলিম, ডা. জহিরুল ইসলাম শাকিল, ডা. সিরাজুল ইসলাম, ডা. সায়েদুল হক, ডা. পরিমল চন্দ্র, ডা. ফারুক কাশেম, ডা. কামরুল হাসান সরদার, ডা. মো. ফখরুজ্জামান ফখরুল প্রমুখ।

এছাড়া ড্যাবের কেন্দ্রীয় নেতা ডা. মো. শামসুল আলম, ডা. সরকার মাহবুব আহমেদ শামীম, ডা. সায়ীদ মেহবুব উল কাদির, ডা. পারভেজ রেজা কাকন, ডা. খালেকুজ্জামান দীপু, ডা. মোস্তফা আজিজ সুমন, একরামুল রেজা টিপু ও কবির আহমেদ রিয়াজ, ড্যাবের প্রকৌশলী কেএম আসাদুজ্জামান চুন্নু, এ্যামট্যাবের বিপ্লবুজ্জামান বিপ্লব ও দবির উদ্দিন তুষারসহ শতাধিক চিকিৎসক উপস্থিত ছিলেন।

 

advertisement