advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

চরফ্যাশন ও হিলিতে দুই নারী ধর্ষণের অভিযোগ

আমাদের সময় ডেস্ক
৮ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ৮ আগস্ট ২০২২ ০১:১৬ এএম
advertisement

চাঁদপুরের কচুয়ায় সপ্তম শ্রেণির মাদ্রাসাছাত্রীকে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে গণর্ধষণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত শুক্রবার উপজেলার কচুয়া উত্তর ইউনিয়নের তেতৈয়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সকা?লে ভুক্তভোগীর বাবা এ ঘটনায় কচুয়া থানায় অভি?যোগ দা?য়ের করেন। এদিকে দিনাজপুরের হিলি ও ভোলার চরফ্যাশনে দুই নারী ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

advertisement

চাঁদপুর : গত শুক্রবার বেলায় ১১টায় নির্যাতিত মেয়েটি তার অসুস্থ বোনের জন্য কচুয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে খাবার নিয়ে যাচ্ছিল। তেতৈয়া গ্রামের মাদ্রাসাসংলগ্ন বাড়ির নুরুল ইসলামের ছেলে মোহাম্মদ উল্যাহ ও একই গ্রামের খামার বাড়ির আবু মুছার ছেলে হাসান তার পিছু নিয়ে হাসপাতাল পর্যন্ত যায় এবং কচুয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে সিএনজি নিয়ে ওঁৎ পেতে থাকে। মেয়েটি হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফেরার সময় দুই যুবক কৌশলে মেয়েটিকে সিএনজিতে উঠায়। তার পর তারা মেয়েটিকে

advertisement 4

গ্লাসে পানি খেতে দেয়। পানি খেয়ে অচেতন হয়ে পড়ে মেয়েটি। পরে তারা মেয়েটিকে তেতৈয়া হয়ে উজানী গ্রামের একটা খালি বাড়িতে নিয়ে রাখে। সেখানে দুই যুবক অচেতন মেয়েটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। জ্ঞান ফিরলে মেয়েটি চিৎকার করার চেষ্টা করে। তখন তারা মেয়েটির মুখ চেপে ধরে ধর্ষণের চেষ্টা করে। কিন্তু মেয়েটির চিৎকারে যুবকদ্বয় পালিয়ে যায়। মেয়েটি বাড়ি ফিরে ঘটনা মাকে জানায়। কচুয়া থানার ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে এ ব্যাপারে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

হিলি (দিনাজপুর) : হিলিতে বিয়ের প্রলোভনে এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে আবদুল হাই নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে হাকিমপুর থানা পুলিশ। শনিবার রাতে উপজেলার জালালপুর গ্রামের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আবদুল হাই ওই গ্রামের মোশারফ হোসেনে ছেলে। তিনি বিবাহিত ও চার সন্তানের জনক। নির্যাতিতার বাড়ি বিশাপাড়া গ্রামে। তিনিও বিবাহিত।

হাকিমপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু সায়েম জানান, কয়েকদিন আগে ওই গৃহবধূকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে হিলি স্টেশন এলাকায় একটি বাসা ভাড়া করে দেন আবদুল হাই। গত শুক্রবার সেই বাড়িতে গিয়ে তিনি তাকে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় রাতেই ওই গৃহবধূ থানায় অভিযোগ দেন। আসামিকে দিনাজপুর আদালতে সোপর্দ ও ভিকটিমকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য দিনাজপুর এম রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

চরফ্যাশন (ভোলা) : চরফ্যাশন উপজেলার শশীভূষণ থানা এলাকায় সিঁদ কেটে ঘরে ঢুকে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার রাতে শশীভূষণ থানার চরকলমি ইউনিয়ন ৪ নম্বর ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। গতকাল সকালে নির্যাতিতাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

নির্যাতিতা জানান, রাত ২টায় স্থানীয় আবদুর রব পাটোয়ারীসহ অচেনা ৪ যুবক তার ঘরের সিঁদ কেটে প্রবেশ করে। তারপর শাশুড়ি ও মেয়েকে হাত-পা ও মুখ বেঁধে ফেলে। পরে তারা ৪ জন মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে তাকে। অভিযুক্ত আবদুর রব পাটোয়ারীর বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি।

শশীভূষণ থানার (ওসি) মিজানুর রহমান পাটোয়ারী জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এর আগে আবদুর রব পাটোয়ারী জমিসংক্রান্ত বিষয়ে ওই নারীর বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। ধর্ষণের ঘটনা সাজানো কিনা তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

advertisement