advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

গণপরিবহনে ভাড়া বাড়ল ১৬-২২ শতাংশ
সাধারণ মানুষের কথা ভাবুন

৮ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম
আপডেট: ৮ আগস্ট ২০২২ ০২:৪৬ এএম
advertisement

বিশ্বব্যাপী জ্বালানির মূল্য যখন অস্থিরতায়, তখন দেশীয় বাজারেও এর প্রভাব পড়া স্বাভাবিক। দেশীয় বিশেষজ্ঞ কেউ কেউ পরিস্থিতি সামাল দিতে জ্বালানির দাম ‘সামান্য’ বৃদ্ধি ও ভর্তুকি কিছুটা কমানোর সুপারিশ করেছিলেন। কিন্তু সেটি যে গড়ে ৪২ থেকে ৫২ শতাংশে উঠবে, তা কেউ ভাবেননি। আর জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধিতে বেড়ে গেল গণপরিবহনের ভাড়াও। সরকারের নতুন হার অনুযায়ী নগর পরিবহনের ভাড়া কিলোমিটারে ৩৫ পয়সা বেড়েছে। অর্থাৎ ২ টাকা ১৫ পয়সা থেকে বাড়িয়ে আড়াই টাকা করা হয়েছে। দূরপাল্লার ৫২ আসনের বাসে প্রতিকিলোমিটারে ভাড়া বেড়েছে ৪০ পয়সা। ১ টাকা ৮০ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে কিলোমিটারে ২ টাকা ২০ পয়সা। তবে দূরপাল্লায় ৫২ আসনের বাস বাস্তবে না থাকায় ৪০ আসনের বাসে প্রকৃত ভাড়া হবে কিলোমিটারে ২ টাকা ৮৬ পয়সা। এর বিরূপ প্রভাব পড়বে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের বাজারে। সেচ ও কৃষি উপকরণের খরচ বৃদ্ধির কারণে উৎপাদন খরচ বাড়বে এবং পরিণতিতে ভোক্তা পর্যায়ে বাড়তি ব্যয় করতে হবে।

advertisement 3

আমরা মনে করি, এই সময়ে এসে জ্বালানির মূল্য এতটা বৃদ্ধি সুবিবেচনার পরিচায়ক হয়নি। আন্তর্জাতিক বাজারে যখন তেলের দাম কম ছিল, তখন সরকার ভোক্তাদের কাছ থেকে বেশি অর্থ নিয়েছে এবং মুনাফা করেছে। এখন আন্তর্জাতিক বাজারের দোহাই দিয়ে একবারে এত বেশি দাম বৃদ্ধি করা অনুচিত। আট মাস আগে ২৭ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করার চাপ সামলে ওঠার মধ্যেই আবারও গণপরিবহনে একটা বাড়তি ভাড়ার ধাক্কার মুখে পড়তে হচ্ছে সবাইকে। উচ্চমূল্যস্ফীতি নিয়ে আগে থেকেই সংসার সামলাতে হিমশিম খাওয়া মানুষ এবারের নজিরবিহীন দাম বৃদ্ধির চাপে পড়ল। এ অবস্থায় জ্বালানির দাম যৌক্তিক ও সহনীয় রাখতে পুনরায় দাবি জানাচ্ছি।

advertisement 4

advertisement