advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সরকারি গাড়ির তেল চুরি
দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করুন

১২ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম
আপডেট: ১২ আগস্ট ২০২২ ০১:০২ এএম
advertisement

রাজধানীর আগারগাঁও এলাকা থেকে গত বুধবার দুপুরে জ্বালানি তেল চুরি চক্রের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারা প্রতিদিন সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের ৫০টি গাড়ি থেকে ৩-৪ লিটার তেল চুরি করত। একটি দোকান দিনে প্রায় ২০০ লিটার চোরাই তেল কিনত। এটির মাসিক হিসাব প্রায় ৬ হাজার লিটার। এ রকম মোট তিনটি দোকানে মাসে প্রায় ১৮ হাজার লিটার জ্বালানি তেল বেচাকেনা হতো। এগুলো হয়তো হিমশৈলের চূড়ামাত্র। তলায় আরও অনিয়ম-দুর্নীতির ঘটনা থাকা সম্ভব। নিয়মিতভাবে গণমাধ্যমে এসব খবরের ছিটেফোঁটা প্রকাশিতও হচ্ছে। শুধু সরকারি গাড়ি নয়, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন গাড়ি থেকে এ রকম তেল চুরি হচ্ছে। গাড়িচালকরা মূলত এই তেল চুরির সঙ্গে জড়িত। প্রতিদিন কয়েকশ লিটার তেল তারা প্রায় অর্ধেক দামে বিক্রি করে দিচ্ছে। আর পরবর্তী সময়ে ওই তেল চলে যায় একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ীর হাতে।

advertisement 3

রাষ্ট্র যেমন নাগরিক হিসেবে আমাদের নিরাপত্তার দায়িত্ব নেয়, তেমনি নাগরিক হিসেবে আমাদেরও দায়িত্ব দেশ বা রাষ্ট্রের সম্পদের সুরক্ষা করা। কোনো অবস্থাতেই রাষ্ট্রীয় সম্পদের ক্ষতি করা যাবে না। দেশের প্রচলিত বিভিন্ন আইন রাষ্ট্রীয় সম্পদ বিনষ্টকারীদের অপরাধী হিসেবে গণ্য করেছে। রাষ্ট্রীয় সম্পদের অনিষ্ট বা ক্ষতি করলে রয়েছে শাস্তির ব্যবস্থা। তবে আইন-কানুন তো খাতা-কলমে থাকলে হবে না, চাই এর যথাযথ প্রয়োগ।

advertisement 4

দুঃখজনক হলেও সত্যি, আমাদের দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে বিভিন্ন অপরাধ বেড়েই চলেছে। যেহেতু তেল চুরির এ বিষয়টিও বেশ কয়েকবার বিভিন্ন গণমাধ্যমে এসেছে, সেহেতু উচিত হবে বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা। এ ছাড়া এসব অপরাধীকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা- যেন এমন ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে।

advertisement