advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয় করবেন যেভাবে

অনলাইন ডেস্ক
১৪ আগস্ট ২০২২ ১০:১৭ এএম | আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০২২ ১১:১৮ এএম
বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয় ।
advertisement

প্রতিদিনের জীবনযাপনে আমরা অনেকাংশে বিদ্যুতের ওপর নির্ভরশীল। বিদ্যুৎ সংকট দিন দিন প্রকট আকার ধারণ করছে। যে কারণে বেড়েই চলেছে বিদ্যুৎ খরচের পরিমাণ। বিদ্যুতের ঘাটতি থেকে বাঁচতে তাই সতর্ক হতে হবে আমাদেরই। সহজ কিছু বিষয় মেনে চললে বিদ্যুৎ সাশ্রয় করা সম্ভব হবে। বিনা প্রয়োজনে ইলেকট্রিক যন্ত্র চালিয়ে রাখা থেকে বিরত থাকতে হবে। এতে বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের পাশাপাশি মাস শেষে বিদ্যুৎ বিলও কম আসবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক বিদ্যুৎ সাশ্রয় করার কিছু উপায়-

সুইচ বন্ধ রাখুন

advertisement 3

ব্যবহার শেষে বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতির সুইচ বন্ধ করুন। অপ্রয়োজনীয় বাতি বা ফ্যান ব্যবহার করবেন না। এতে বিদ্যুতের অপচয় হয়। বাড়ি থেকে বের হওয়ার আগে সবগুলো সুইচ ভালো করে চেক করে নিন। 

advertisement 4

কম্পিউটার ব্যবহার 

একটি কম্পিউটার ২৪ ঘণ্টা চললে তা একটি বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী ফ্রিজের চেয়ে বেশি শক্তি গ্রহণ করে। তাই জরুরি প্রয়োজন ছাড়া এটি ব্যবহার না করার শ্রেয়। কম্পিউটার যদি অন রাখতেই হয় তবে মনিটর বন্ধ করে রাখুন। কারণ, মনিটর একাই সিস্টেমের ৫০ শতাংশের বেশি বিদ্যুৎ ব্যবহার করে। ব্যবহার শেষে স্লিপ মোডে রাখতে পারেন। এতে ৪০ শতাংশ বিদ্যুৎ সাশ্রয় হবে। 

চার্জার খুলে রাখুন 

বেশিরভাগ মানুষই ব্যাটারি চার্জার (যেমন- ল্যাপটপ, সেল ফোন এবং ডিজিটাল ক্যামেরা ইত্যাদি) ব্যবহার শেষের প্লাগ ইন করে রাখেন। এগুলো শক্তি গ্রহণ করে। তাই চার্জ দেওয়া শেষে পয়েন্ট চার্জার খুলে রাখা উচিত। 

বাতি পরিষ্কার করুন 

টিউব লাইট ও বাল্বে ময়লা জমলে তা ৫০ শতাংশ আলো শোষণ করে নেয়। ফলে আলোর উজ্জ্বলতা কমে যায়। তাই সপ্তাহে একদিন ঘরের বাতিগুলো পরিষ্কার করুন। 

একবারে আয়রন করুন 

সব পোশাক একসঙ্গে আয়রন করুন। আয়রন করাকালীন ইস্ত্রির সুইচ অন করে রেখে দেবেন না। কাজ না করলেও এটি বিদ্যুৎ গ্রহণ করে। ফলে বিদ্যুতের অপচয় হয়। 

ইলেকট্রিক কেটলি ব্যবহার 

পানি গরম করতে ইলেকট্রিক কেটলি ব্যবহার করুন। ইলেকট্রিক কুক পটের তুলনায় এর ব্যবহার বেশি বিদ্যুৎ সাশ্রয়ী। 

সাদা রঙের ব্যবহার 

ঘরের দেয়াল, ছাঁদ, পর্দা এবং আসবাবপত্রে সাদা রঙ ব্যবহার করুন। সাদা সম্ভব না হলেও অন্য কোনো হালকা রঙ ব্যবহার করুন। এতে ঘর উজ্জ্বল দেখায়। আলো কম লাগায় বিদ্যুৎ সাশ্রয় হয়। দিনের বেলায় যতটা পারা যায় প্রাকৃতিক আলো ব্যবহারের চেষ্টা করুন। 

এলইডি বাল্ব ব্যবহার

সাধারণ বাল্বের তুলনায় এলইডি বাল্বে কম বিদ্যুৎ খরচ হয়। উজ্জ্বলতাও বেশি হয়। বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে বাসা বা অফিসে এলইডি বাল্ব ব্যবহার করুন। 

ফ্রিজ ডিফ্রস্টিং করুন

ফ্রিজে অতিরিক্ত বরফ জমলে ঠান্ডা করার ক্ষমতা কমে যায়। ফলে বেড়ে যায় বিদ্যুতের ব্যবহার। তাই কয়েকদিন পর পর ফ্রিজ ডিফ্রস্টিং করুন। 

নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত টিভি দেখা 

অনেকেই রাতে টিভি দেখতে দেখতে ঘুমিয়ে যান। ফলে সারা রাত টিভি চলতে থাকে। প্রচুর পরিমাণ বিদ্যুতের অপচয় হয় এতে। তাই টিভি দেখার জন্য সময় নির্দিষ্ট করে নিন। আধুনিক স্মার্টটিভিতে সময় সেট করা যায়। সেটি করুন। এতে নির্দিষ্ট সময় পর স্বয়ংক্রিয়ভাবে টিভি অফ হয়ে যাবে। 

বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হোন। তবেই বর্তমানে সৃষ্ট পরিস্থিতি থেকে মুক্তি মিলবে দ্রুত। 

 

advertisement