advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পূজার ‘সেই ছবি’র ব্যাখ্যা দিলেন নির্মাতা

বিনোদন প্রতিবেদক
২২ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০১:০৫ পিএম | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০১:০৮ পিএম
‘হৃদিতা’ সিনেমার একটি দৃশ্য। ছবি : ভিডিও থেকে নেওয়া
advertisement

জনপ্রিয় কথা সাহিত্যিক আনিসুল হকের ‘হৃদিতা’ উপন্যাস অবলম্বনে সিনেমা নির্মাণ করেছেন ইস্পাহানি আরিফ জাহান। সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত ‘হৃদিতা’ শিরোনামের এই সিনেমার প্রধান দুই চরিত্রে অভিনয় করেছেন পূজা চেরি ও এবিএম সুমন। গত মঙ্গলবার রাতে এর ট্রেলার উন্মুক্ত করার পরই তা নিয়ে নেটদুনিয়ায় চলে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা। যা নিয়ে দৈনিক আমাদের সময় অনলাইন-এ ‘পূজার ‘যে ছবি’ ঘিরে চলছে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা’ শিরোনামে একটি সংবাদ করা হয়।

গতকাল বুধাবর বিষয়টি নিয়ে সিনেমাপাড়ায়ও বেশ আলোচনা হয়। এরপরই এর নির্মাতা ইস্পাহানি আরিফ জাহান ‘সেই ছবি’র প্রসঙ্গে কথা বলেন একটি গণমাধ্যমে।

advertisement 3

সিনেমার প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আসলে কিছু গ্রুপ আছে, যাদেরকে সিনেমার প্রচারের জন্য টাকা দিতে হয়। এখন আমি তো এদের কারও দ্বারস্থ হইনি। নিজেরটা নিজেই প্রচার করব। সিনেমা থেকে তো পয়সা আসে না; তাহলে খরচ কোত্থেকে করব?’

advertisement 4

টাকার বিনিময়ে প্রচার করার কোনো প্রস্তাব পেয়েছেন কিনা জানতে চাওয়া হলে ইস্পাহানি বলেন, ‘এগুলা আমরা আগে থেকেই জানি। আমরা তো সিনেমার অনেকদিন যাবৎ আছি। এটা নিয়ে সেভাবে কিছু বলতেও চাই না। ফেসবুকে অনেকেই অনেক কথা বলেন, আমি উত্তরও দেই না। একটা মানুষের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকাটাই তো ভালো, সম্পর্ক খারাপ করে কোনো লাভ আছে?’

পূজার ‘সেই ছবি’র ব্যাখ্যা আর টাকার প্রস্তাব প্রসঙ্গে জানতে দৈনিক আমাদের সময় অনলাইন’র পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয় নির্মাতার সঙ্গে। প্রথমেই তার কাছে জানতে চাওয়া হয়, কারা কারা তাকে প্রচারণার বিনিময়ে টাকার প্রস্তাব দিয়েছেন?

উত্তরে ইস্পাহানি বলেন, ‘আমি আসলে বিষয়টি ওভাবে বোঝাতে চাইনি। একখানে একটু ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। আসলে প্রচারণার জন্য অনেকেই টাকা নিয়ে থাকে। কিন্তু আমি চেয়েছি আমার ছবির প্রচারণা আমি নিজেই করব; আর সে কারণেই কথাটা বলা।’

আপনাকে কী কেউ টাকার প্রস্তাব দিয়েছে? ‘না, আমাকে কেউ টাকার কোনো প্রস্তাব দেয়নি,’ বললেন নির্মাতা।

এবার জানতে চাওয়া হল ‘হৃদিতা’র ‘সেই ছবি’ প্রসঙ্গে। ইস্পাহানি আরিফ জাহানের ভাষ্য, ‘দেখুন যেই দৃশ্যটির কথা বলা হচ্ছে, এটি মাত্র দুই ফ্রেমের একটি শট। এখন যদি এটা মানুষের খারাপ লাগে, তাহলে দিলাম না! এটা তো বড় বিষয় না। আর ছবিটি কিন্তু সেন্সর হয়ে গেছে। এখানে এমন কিছু থাকলে অবশ্যই সেন্সর বোর্ড সেটি সেন্সর দিত না। আপনার পুরো ছবিটি দেখলেই বুঝতে পারবেন- এটি কেমন গল্পের ছবি আর এখানে খারাপ কিছু তুলে ধরা হয়েছে কি-না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা এক সময় বাণিজ্যিক, অ্যাকশন ধাঁচের ছবি তৈরি করেছি। এরপর দীর্ঘদিন সিনেমার ব্যবসায় মন্দা ছিল। এখন আবার মানুষ হলমুখী হয়েছে। ভালো গল্প ও মানের ছবি নির্মাণ হচ্ছে। বিশ্ববাজারে নজর দিলে দেখবেন, তারা কত এগিয়ে গেছে। একজন চিত্রশিল্পী তার প্রেমিকার একটি নুড ছবি এঁকেছে। তা নিয়ে এত সমালোচনা। অথচ জেমস ক্যামেরনের ক্যামেরা ‘টাইটানিক’ ছবিতে কিন্তু এমন দৃশ্য সারা বিশ্বের দর্শক দেখেছে। বাংলাদেশের মানুষও দেখেছে। সবাই কিন্তু ছবির প্রশংসা করেছে। তাও বহু বছর আগে। এর মধ্যে হলিউড, বলিউডে এরচেয়ে অনেক অশ্লীল ছবি তৈরি হয়েছে। যা এ দেশের দর্শক প্রাণভরে উপভোগ করেছে। এতো কথা কিন্তু হয়নি। এখন আমরা যখন যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি, তখন এত সমালোচনা।’

সবশেষে এই নির্মাতা ইস্পাহানি আরিফ জাহান বলেন, ‘ছবিতে এমন কোনো দৃশ্য নেই যা আপনাদের খারাপ লাগবে বা পরিবার নিয়ে দেখার মতো না। আপনারা ছবিটি দেখুন এরপর মন্তব্য করুন। সবাইকে অনুরোধ করব; বাংলা সিনেমার সুবাতাস বইছে, এই পরিবেশটি নষ্ট করবেন না।’

উল্লেখ্য, ‘হৃদিতা’র প্রকাশিত ট্রেলারে ‘টাইটানিক’ সিনেমার রোজ-জ্যাকের দৃশ্যের অনুকরণ করা হয়েছে। যেখানে দেখা যায়, ক্যানভাসে তুলির আঁচড়ে পূজার নগ্ন শরীরের ছবি আঁকছেন তার ভালোবাসার মানুষ চিত্রনায়ক এবিএম সুমন। শুধু তাই নয়, কিছু ঘনিষ্ঠ দৃশ্যের ঝলকও দেখা গেছে ট্রেলারে। এসব সমালোচনা শুরুর পরই দৃশ্যটি ট্রেলার থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে।

advertisement