advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সা ক্ষাৎ কা র
‘শুরুর দিকে প্রতিদিনই ছিল আমার জন্য র‌্যাগ ডে’

তারেক আনন্দ
২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৯:৪১ এএম
উপস্থাপক তাসনুভা মোহনা
advertisement

জনপ্রিয় উপস্থাপক তাসনুভা মোহনা। টিভি খুললেই ভেসে ওঠে তার হাসিমুখ। একাধিক টেলিভিশনের প্রোগ্রাম নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তিনি। উপস্থাপনা নিয়েই কথা হয় মোহনার সাঙ্গে। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন- তারেক আনন্দ

উপস্থাপনায় আসবেন, আগে থেকে ভেবেচিন্তেই কি আসা?

advertisement 3

উপস্থাপনায় আসব বলে আসিনি। চাকরি খুঁজছিলাম। মাছরাঙায় উপস্থাপিকা খোঁজা হচ্ছিল। আমাকে জিজ্ঞেস করা হলো অডিশন দেব কিনা। সাত-পাঁচ না ভেবেই বলেছিলাম- হ্যাঁ দেব। শুরু করার পর কেমন যেন মোহে আটকে গেলাম। আর বেরোতে চাইলাম না। দিন দিন তো ভালো লাগা আরও বাড়ছে জায়গাটার প্রতি।

advertisement 4

এই মুহূর্তে কোন কোন চ্যানেলে প্রোগ্রাম করছেন?

এনটিভিতে ‘গানের বাজার’, বৈশাখী টিভিতে ‘গোল্ডেন সং’, দেশটিভিতে ‘প্রিয়জনের গান’, নাগরিক টিভিতে ‘হিউজ ভিউজ ওয়ার্ল্ড মিউজিক’, এশিয়ান টিভিতে ‘এশিয়ান মিউজিক’ এবং গ্লোবাল টিভিতে ‘শোবিজ টুডে’ ও ‘গ্লোবাল মিউজিক নাইট’-এ আমার উপস্থাপনায় প্রোগ্রামগুলোতে দেখতে পাবেন।

অল্পদিনেই মানুষের মন জয় করে নিয়েছেন। এই বিষয়টা ভাবতে কেমন লাগে?

ঠিক অল্পদিন কি? ২০১৬ থেকে যাত্রা শুরু। কাজ করতে গিয়ে ভুল করতে করতে শিখেছি। প্রডিউসারের বকা খেয়েছি। শুরুর দিকে সহ-উপস্থাপক সিনিয়র হওয়ার প্রায় প্রতিদিনই ছিল আমার জন্য র?্যাগ ডে। তবে ধীরে ধীরে কাজের প্রশংসা আমি পেয়েছি। শুধু দর্শকের কাছ থেকেই নয়, আমার অনুষ্ঠানে অতিথি হয়ে আসা নামকরা শিল্পী, অভিনেতার কাছ থেকেও পেয়েছি সূক্ষ্ম প্রশংসা। তবে মূল্যায়ন সবাইকেই করতে হবে। সরাসরি সম্প্রচারকৃত অনুষ্ঠানে মাঝে মধ্যে দর্শক ফোন করে বলেন- ‘আপু, শুধু আপনার কথা শোনার জন্য অনুষ্ঠান দেখি। আপনি অনেক সুন্দর করে কথা বলেন, তাই যখন যে চ্যানেলে আপনাকে পাই- অনুষ্ঠান দেখি। অনেক সময় ওই পর্যায়ে ফোনকল কেটে দেওয়া হয়, কারণ সংগীতশিল্পীকে ছাপিয়ে উপস্থাপিকার প্রশংসা হয়তো কর্তৃপক্ষের কাছে অপেক্ষাকৃত কম মূল্যবান। আপনি পরিবার-পরিজনের ভালোবাসা এমনিই পাবেন। কিন্তু সাধারণ মানুষের ভালোবাসা অর্জন করে নিতে হয়। আর তার জন্য দৃষ্টি, মন এবং আপনার কথায় মিল থাকতে হবে। জীবনে স্বচ্ছতা জরুরি।

সংগীতবিষয়ক অনুষ্ঠানেই বেশি দেখা যাচ্ছে। এর কারণ কী?

সংগীতবিষয়ক লাইভগুলোতে আমাকে বেশি ডাকা হয়। কারণ রেকর্ডেড প্রোগ্রামে আপনার ভুল-ত্রুটির জন্য দ্বিতীয়বার সুযোগ রয়েছে। লাইভে সেই সুযোগ নেই। তা ছাড়া প্রাসঙ্গিক কথা বলতে জানতে হবে। সেন্স অব হিউমার ভালো হলে অনুষ্ঠান আরও প্রাণবন্ত মনে হয়। সেজন্যই হয়তো লাইভ শোগুলোতে বেশি ডাক পাই। আর লাইভের চ্যালেঞ্জটা নিতেই বেশি ভালো লাগে। তার মানে এই নয় যে, অন্য ধরনের শো করব না। সুযোগ পেলে অন্য ধারাতেও নিজেকে পরখ করে দেখতে চাই। লাইফস্টাইল শোগুলোয় আমাকে দর্শক দেখছে। এমনকি বিজনেস রিলেটেড শোতেও ভালো রেসúন্স পেয়েছি।

উপস্থাপনা দিয়ে শুরু করে অনেকে অন্যদিকে ঝুঁকে যান। আপনারও কি সে রকম চিন্তা আছে?

ঝুঁকে যাওয়া প্রশ্নটা বোধহয় এখন পরিবর্তন করার সময় এসেছে। এখন সবাই চ্যালেঞ্জ এক্সেপ্ট করতে ভালোবাসে। আমিও এ ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম নই। আর যে কোনো কিছু শুরুতেই খুব চমকপ্রদ হয় না। হাতের লেখাটাও শুরুতে কাঁচা হাতের লেখা বলে থাকি আমরা। অনুশীলন এমন এক জাদুর ছড়ি, যা আপনার ইচ্ছাশক্তির কাছে মাথা নত করতে বাধ্য। তবে হ্যাঁ- শেখার আগ্রহ, অতৃপ্তি, ক্ষুধা থাকতে হবে আজীবন। আপনি যা এইমাত্র শিখলেন, সেটাও জীবনে কোনো পর্যায়ে কাজে লাগবেই।

advertisement