advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পুতিনের সেনা সমাবেশের ঘোষণা
পালালো দেড় লক্ষাধিক রাশিয়ান

অনলাইন ডেস্ক
২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৪:২৩ পিএম | আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৪:২৩ পিএম
পুতিনের ঘোষণার পর রাশিয়াজুড়ে অসন্তোষ বাড়ছে
advertisement

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন গত ২১ সেপ্টম্বর আংশিক সেনা সমাবেশের ঘোষণা দেন। এর মাধ্যমে তিন লাখ রিজার্ভ সেনা জড়ো করা হবে। ইতোমধ্যে এর কাজও শুরু হয়েছে দেশটিতে। এসব সেনাকে ইউক্রেনে বিশেষ অভিযানের জন্য পাঠানো হবে বলে রাশিয়ার পক্ষ থেকে বলা হয়।

রাশিয়া এমন ঘোষণার পর দেশটিজুড়ে অসন্তোষ বাড়ছে। হাজারে হাজারে মানুষ রাশিয়ার ছাড়ছে। অনেক ফ্লাইটের টিকেট অগ্রিম বিক্রির খবর পাওয়া গেছে। পুতিনের সেনা সমাবেশ ঘোষণা দেওয়ার পর থেকে দেশটি থেকে কত রাশিয়ান পালিয়েছে তার সম্ভাব্য পরিসংখ্যান জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা প্রধান।

advertisement

আজ বৃহস্পতিবার তিনি জানান, ধারণা করা হচ্ছে, পুতিনের ঘোষণার মাত্র সাত দিনে ১ লাখ ৭০ হাজারের বেশি নাগরিক রাশিয়া ছেড়ে পালিয়েছে। যুক্তরাজ্যের সর্বশেষ গোয়েন্দা তথ্য অনুযায়ী লন্ডনে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, পুতিনের 'আংশিক সেনাসমাবেশের' ঘোষণা দেওয়ার পর থেকে সাত দিনে প্রচুর লোক রাশিয়া ছেড়েছে। 

advertisement 4

চলতি বছরের গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযানের ঘোষণা দেন রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন। এরপর আজ পর্যন্ত টানা ২১৮ দিনের মতো চলছে দেশ দুইটির সংঘাত। এতে দুই পক্ষের বহু হতাহতের খবর পাওয়া যাচ্ছে। তবে যুদ্ধ বন্ধে এখন পর্যন্ত কোনো লক্ষণ নেই। উল্টো পূর্ব ইউক্রেনে দেশ দুইটির মধ্যে সংঘাত আরো বেড়েছে।

অল্প কয়েকদিনের মধ্যে ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভ দখল নিয়ে সেখানে পুতুল সরকার বসানোর বাসনা নিয়ে পুতিন যে আগ্রাসন শুরু করেছিলেন তা এখন পর্যন্ত অধরাই। উল্টো ইউক্রেনে রুশ বাহিনী যে চরম জনবল সংকটে ভুগছে তা ক্রমেই স্পষ্ট হয়ে উঠছে। ইউক্রেনে বাহিনীর জনবল মজুদ দিতেই পুতিন সেনা সমাবেশের ঘোষণা দিয়েছেন বলে দাবি পশ্চিমাদের।

advertisement