advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রেস ব্রিফিংয়ে ডিএমপি উপ-কমিশনার
গোয়েন্দা প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ঢাকায় বিএনপির সমাবেশের অনুমতি

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৫ নভেম্বর ২০২২ ০৪:৪৫ পিএম | আপডেট: ১৫ নভেম্বর ২০২২ ০৭:২৮ পিএম
ডিএমপি উপ-কমিশনার মো. ফারুক হোসেন
advertisement

আগামী ১০ ডিসেম্বর রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করতে চায় দলটির নেতাকর্মীরা। সমাবেশের অনুমতি চেয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কার্যালয়ে আবেদনও করেছেন তারা।

তবে বিএনপির সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হবে কি না, তা গোয়েন্দা প্রতিবেদনের ওপর নির্ভর করছে বলে জানিয়েছেন ডিএমপি উপ-কমিশনার মো. ফারুক হোসেন।

advertisement

আজ মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর পুলিশের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান মো. ফারুক হোসেন।

advertisement 4

ডিএমপি উপ-কমিশনার বলেন, ‘কিছুক্ষণ আগে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ পুলিশ কমিশনার মহোদয়ের সঙ্গে সমাবেশের অনুমতি ও ভেন্যু নির্ধারণ নিয়ে বৈঠক করেছেন। বিএনপি নেতৃবৃন্দ বৈঠকে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে একটি লিখিত আবেদনপত্র জমা দিয়েছেন। তারা নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করার অনুমতি চেয়েছেন। আমরা বলেছি, আপনাদের অন্য কোনো ভেন্যু পছন্দ হলে সেটাও জানাতে পারেন।’

ফারুক হোসেন বলেন, ‘আমরা বিবেচনা করব তাদের ১০ তারিখে অনুমতি দেওয়ার বিষয়টি, কোন ভেন্যুতে দেওয়া যায়। বিবেচনা করার পূর্বে আমাদের যে অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা সংস্থা আছে, তারা সমাবেশের হুমকি বিশ্লেষণ করে যে প্রতিবেদন দেবে, সেটার পরিপ্রেক্ষিতে, সেটা বিবেচনা করেই তাদের অনুমতি দেওয়া হবে।’

বিএনপি সমাবেশস্থলে আইনশৃঙ্খলা নিরাপত্তা নিশ্চিত করার অনুরোধ জানিয়েছেন উল্লেখ করেন ডিএমপির এই কর্মকর্তা। তিনি বলেন, ‘আমরা বলেছি, সমাবেশে সর্বাত্মক নিরাপত্তা দেওয়া হবে।’

সমাবেশ কোথায় হবে, এ বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত হয়নি বলে জানান ফারুক হোসেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপির যেসব নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে তাদেরই কেবল গ্রেপ্তার করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, আগামী ১০ ডিসেম্বর নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মহাসমাবেশের অনুমতি নিতে আমান উল্লাহ আমানের নেতৃত্বে বিএনপির একটি প্রতিনিধি দল পুলিশ কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুকের সঙ্গে তার কার্যালয়ে আজ বৈঠক করেন। এর আগে সকাল ১০টা ২০ মিনিটে মিন্টো রোডের ডিএমপি কমিশনারের কার্যালয়ে যান বিএনপির নেতারা।

advertisement