advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রেমিট্যান্স পাঠানোর চার্জ মওকুফে সঠিক নির্দেশনা চান প্রবাসীরা

প্রবাস ডেস্ক
১৮ নভেম্বর ২০২২ ০৯:৪৯ পিএম | আপডেট: ১৮ নভেম্বর ২০২২ ০৯:৪৯ পিএম
প্রতীকী ছবি
advertisement

দেশে রেমিট্যান্স পাঠাতে চার্জ মওকুফ নিয়ে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে সঠিক নির্দেশনার দাবি জানিয়েছেন কুয়েতে বিভিন্ন এক্সচেঞ্জ হাউজে কর্মরত প্রবাসীরা। তারা বলছেন, ‌‌‘রেমিট্যান্স পাঠাতে আর চার্জ দিতে হবে না। সংবাদমাধ্যমে এমন খবর প্রকাশ হলেও কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে এখন পর্যন্ত কোনো নোটিশ পাননি আমরা। আমাদের কোম্পানিও কোনো নির্দেশনা জারি করেনি।’

চলমান ডলার সংকটে বৈধভাবে রেমিট্যান্স বাড়াতে চলতি মাসের শুরুর দিকে দেশের ব্যাংকগুলোর প্রধান নির্বাহীদের সংগঠন অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশ (এবিবি) ও বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেনকারী ব্যাংকগুলোর সংগঠন বাংলাদেশ ফরেন এক্সচেঞ্জ অথরাইজড ডিলারস অ্যাসোসিয়েশন (বাফেদা) এক সিদ্ধান্তে জানায়, প্রবাসীদের পাঠানো রেমিট্যান্সে এখন থেকে কোনো চার্জ লাগবে না। এছাড়া দেশের বাইরে ছুটির দিনে নিজস্ব এক্সচেঞ্জ হাউস খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলেও জানানো হয়।

advertisement

দেশের জাতীয় গণমাধ্যমে এমন খবর গুরুত্ব সহকারে প্রচারিত হয়। কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানান বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থাকা হাজারো প্রবাসী। তবে এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো নোটিশ পাননি বলে জানিয়েছেন কুয়েতে বিভিন্ন এক্সচেঞ্জ হাউসে কর্মরত প্রবাসীরা। বিষয়টি নিয়ে সঠিক নির্দেশনার দাবি জানিয়েছেন তারা।

advertisement 4

গত বৃহস্পতিবার রাতে কুয়েতের ফাহাহিল অঞ্চলে জনতা রেস্টুরেন্টে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করে কুয়েতে এক্সচেঞ্জ হাউসে কর্মরত প্রবাসীরা। এতে উপস্থিত ছিলেন এক্সচেঞ্জ কোং (বিডি) এমপ্লয়িজ অর্গানাইজেশনের সভাপতি আ.ক.ম আজাদ, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল আলম সুমন, মো. আনোয়ার হোসেন, মোহাম্মদ আমির হোসেন মজুমদার, এস, আর রহমান তারেক ও বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক মঈন উদ্দিন সরকার সুমনসহ আরও অনেকে।

সভায় এক্সচেঞ্জ কোম্পানির কর্মকর্তা ও নেতারা বলেন, ‘প্রবাসীদের রেমিট্যান্স পাঠানোর ফি বা চার্জ মওকুফের বিষয়ে এবিবি ও বাফেদা যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সে বিষয়ে এখনো কোনো নোটিশ বা নির্দেশনা পাই নাই আমরা। এ বিষয়ে আমাদের কোম্পানিও কোনো নোটিশ জারি করেনি। এ নিয়ে আমরা সাধারণ প্রবাসীদের কাছে নানা প্রশ্নের সম্মুখীন হচ্ছি। রেমিট্যান্স পাঠাতে আর চার্জ দিতে হবে না-এমন খবরকে এক প্রকার প্রপাগান্ডা বলে মনে করছি আমরা।’

বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের চালিকাশক্তি প্রবাসী রেমিটেন্স। কিন্তু হুন্ডির মাধ্যমে দেশে টাকা পাঠানোয় সেই রেমিটেন্স দিন দিন কমে যাচ্ছে। সংগঠনের নেতারা আরও জানান, হুন্ডি রোধে সোচ্চার কুয়েতে এক্সচেঞ্জ হাউসে কর্মরত প্রবাসীরা। প্রবাসীদের কষ্টার্জিত অর্থ বৈধভাবে পাঠানোর জন্য উদ্বুদ্ধ করতে কাজ করছেন বলে জানান তারা। আর তাই এ বিষয়ে বাংলাদেশ থেকে দ্রুত সঠিক নির্দেশনার আশায় রয়েছেন এক্সচেঞ্জ হাউসে কর্মরত প্রবাসীরা।

advertisement