advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

জঙ্গিদের নেওয়া হলো ডা-াবেড়ি পরিয়ে

আদালত প্রতিবেদক
২৪ নভেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৩ নভেম্বর ২০২২ ১১:৩৮ পিএম
advertisement

ব্লগার ওয়াশিকুর রহমান বাবু হত্যা মামলায় নিষিদ্ধ সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের তিন জঙ্গিকে কারাগার থেকে গতকাল বুধবার ডা-াবেড়ি পরিয়ে আদালতে আনা হয়। আসামিরা হলেন জিকরুল্লাহ, আরিফুল ইসলাম ও সাইফুল ইসলাম। ঢাকার তৃতীয় অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে এদিন মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ছিল। মামলার অপর দুই আসামি হাসিব আব্দুল্লাহ ও আবু তাহের জুনায়েদ পলাতক। এদিন মামলায় সাক্ষ্য দেন তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক মশিউর রহমান। পরে বিচারক শেখ ছামিদুল ইসলাম আগামী

advertisement

৩১ জানুয়ারি পরবর্তী শুনানির তারিখ ধার্য করেন।

advertisement 4

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গতকাল তিন জঙ্গিকে আদালতে ওঠানোর সময় প্রায় অর্ধশত পুলিশ সদস্যের সমন্বয়ে নিরাপত্তা বেষ্টনী তৈরি করা হয়। এ সময় কড়া নিরাপত্তার মধ্যে ডা-াবেড়ি পরিয়ে তাদের তোলা হয় আদালতে। একইভাবে আদালত থেকে নিয়ে যাওয়ার সময়ও তাদের প্রিজনভ্যানে তোলা হয়।

মহানগর দায়রা জজ আদালতের হাজতখানার ইনচার্জ আ. হাকিম বলেন, চাঞ্চল্যকর মামলায় জঙ্গি সংগঠনের তিন জন আসামি হওয়ায় এদিন আমরা বাড়তি সতর্কতা নিয়েছিলাম। কারাগার থেকে ডা-াবেড়ি পরিয়ে তাদের পাঠানো হয়। আদালতেও ছিল পর্যাপ্ত নিরাপত্তা।

গত ২১ নভেম্বর সন্ত্রাসী, জঙ্গি, চাঞ্চল্যকর, সাজাপ্রাপ্ত বা একাধিক মামলায় দ-প্রাপ্ত আসামিদের আদালতে হাজির করার সময় ডা-াবেড়ি পরানোর বিষয়ে কারা সদর দপ্তরে চিঠি পাঠায় পুলিশ। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) প্রসিকিউশন বিভাগ পুলিশ কমিশনারের মাধ্যমে এ চিঠি পাঠানো হয়। তার আগে গত রবিবার পুলিশের চোখে পিপার স্প্রে করে ঢাকার আদালত থেকে লেখক অভিজিৎ রায় ও জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপন হত্যা মামলায় মৃত্যুদ-প্রাপ্ত দুই জঙ্গিকে ছিনিয়ে নিয়ে যায় তাদের সহযোগীরা। এ ছাড়া পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, গত এক বছরে পুলিশের হেফাজত থেকে অন্তত ১৫ জন আসামি পালিয়ে যাওয়ার ঘটনাও জানা যায়। এ নিয়ে তুমুল সমালোচনার মধ্যে দ-প্রাপ্ত আসামিদের আদালতে হাজির করার সময় ডা-াবেড়ি পরানোর বিষয়ে চিঠি পাঠানো হয়।

ওয়াশিকুর রহমান বাবু হত্যা মামলায় ২০২০ সালের ২৭ অক্টোবর রায় ঘোষণার জন্য ছিল। কিন্তু সেদিন আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যার মূল অভিযোগের সঙ্গে দ-বিধির ১২০ (বি) ধারায় ঘটনায় ষড়যন্ত্রের নতুন অভিযোগ এনে চার্জ সংশোধন করে নতুন করে চার্জ গঠন করা হয়। তাই মামলাটিতে নতুন করে সাক্ষ্যগ্রহণ হচ্ছে।

২০১৫ সালের ৩০ মার্চ রাজধানীর তেজগাঁওয়ের বেগুনবাড়ীর দিপিকা মোড়ে ওয়াশিকুর রহমানকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। পালানোর সময় দুই হামলাকারীকে আটক করে পুলিশে দেয় তৃতীয় লিঙ্গের লোকজন ও এলাকাবাসী। এ ঘটনায় বাবুর ভগ্নিপতি মনির হোসেন মাসুদ তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় মামলা করেন।

advertisement