advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

টিআর-কাবিখা-ওএমএস
অনিয়মে জড়িতদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নিন

২৪ নভেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম
আপডেট: ২৪ নভেম্বর ২০২২ ১২:৪১ এএম
advertisement

নিত্যপণ্যের ঊর্ধ্বগতির সঙ্গে পেরে উঠছে না সাধারণ মানুষ। মানুষের দুর্ভোগ কমাতে খাদ্য অধিদপ্তরের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচির আওতায় সাধারণ মানুষের মধ্যে স্বল্পমূল্যে চাল ও আটা বিক্রি করছে সরকার। কিন্তু তা চাহিদার তুলনায় অপ্রতুল। তবুও এসব পণ্য বিক্রিতে ঘটছে ব্যাপক অনিয়ম। অনেকেই ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষার পরও চাল ও আটা না পেয়ে মলিনমুখে ফিরছেন। কেউ আবার লাইনে না দাঁড়িয়েই ডিলারদের যোগসাজশে বস্তাভর্তি পণ্য নিয়ে যাচ্ছেন।

advertisement

গত মঙ্গলবার আজিমপুরের ছাপড়া মসজিদ এলাকায় ওএমএসের ট্রাকে পণ্য বিক্রির চিত্র উঠে আসে আমাদের সময়ের প্রতিবেদনে। সকাল থেকেই ভিড় জমে। সময় যত বাড়তে থাকে, অনিয়মও তত বাড়তে থাকে। অনেকে লাইনে না দাঁড়িয়ে বিতরণকারী কর্মকর্তাদের যোগসাজশে পণ্য নিয়ে যেতে শুরু করে। ১২টার দিকে আটা বিক্রি বন্ধ করে দেওয়া হয়। অথচ ট্রাকে আটার মজুদ তখনো ফুরায়নি। সুমন নামের একজন লাইনে না দাঁড়িয়েই একাধিকবার ট্রাক থেকে চাল-আটা আনেন। নিয়ে রাখেন পাশের একটি দোকানে। অনেকে লাইনে না দাঁড়িয়ে তার দিকে এগিয়ে যান। তারা সুমনের হাতে কিছু টাকা গুঁজে দেন। একটু পর সুমন তাদের চাল এনে দেন। লাইনে দাঁড়ানো ব্যক্তিরা অসহায়ের মতো দাঁড়িয়ে থাকেন।

advertisement 4

প্রধানমন্ত্রীর তরফে বারবার ত্রাণ বিতরণ এবং ওএমএস কার্যক্রমের চাল বিক্রির অনিয়মে জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের ঘোষণা দেওয়া হচ্ছে। তা সত্ত্বেও দেশের নানাপ্রান্ত থেকে দুর্নীতি ও আত্মসাতের খবর মিলছে। মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে চালচোরদের বিরুদ্ধে কিছু ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। কিন্তু তা যথেষ্ট নয়। বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ করে চালচোরদের দৃষ্টান্তমূলক বিচার হওয়া দরকার। মোবাইল কোর্টের টুকটাক জরিমানায় ঠিক তাদের নিবৃত্ত করা সম্ভব বলে প্রতীয়মান হয় না। এ ক্ষেত্রে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ যদি তার অভিযুক্ত নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিতে পারে, সেটি সমাজে অনেক জোরালো প্রতিরোধ গড়তে সহায়ক হতে পারে।

ওএমএস প্রয়োজনীয় গণমুখী কর্মসূচি। অব্যবস্থাপনা ও অনিয়ম-দুর্নীতির কারণেই এ ভালো কর্মসূচিগুলো ব্যর্থ হয়ে যায়। যাদের ব্যর্থতা ও লোভ-লালসার কারণে রাষ্ট্রের বিশাল অপচয় ঘটছে, তাদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নেওয়া জরুরি।

advertisement