advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

প্রতিবাদে অনড় বেলজিয়াম

ক্রীড়া ডেস্ক
২৪ নভেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৪ নভেম্বর ২০২২ ০১:০২ এএম
advertisement

বিশ্বকাপের দেশ কাতারে সমকামিতা অপরাধের পর্যায়ে পড়ে। মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে এই সম্প্রদায়ের মানুষকে কঠোর বার্তা দিয়ে রেখেছে কাতার প্রশাসন। তাদের সমর্থন দিচ্ছে ফুটবলের অভিভাবক সংস্থা ফিফাও। সমকামিতা ইস্যুতে স্বাগতিক দেশ ও ফিফার যৌথ অবস্থান বেশ শক্ত। বিশ্বকাপের সময় এই সম্প্রদায়ের দায়িত্ব নেবে না তারা।

advertisement

তাতে চটেছে ইউরোপের ৭টি দল। সমকামিদের সমর্থন জানিয়ে দলগুলোর অধিনায়করা জার্সিতে ‘ওয়ানলাভ’ স্টিকার কিংবা ‘ওয়ানলাভ’ আর্মব্যান্ড সংবলিত জার্সি পরে মাঠে নামার ঘোষণা দিয়েছিলেন। তাৎক্ষণিকভাবে কঠিন পদক্ষেপ নেয় ফিফা। তারা জানায়, কোনো অধিনায়ক এমনটি করলে তাকে হলুদকার্ড দেওয়া হবে।

advertisement 4

শুধু তাই নয়, ওই খেলোয়াড় নিষেধাজ্ঞার ঝুঁকিতে পড়তে পারে বলে হুঙ্কার ছাড়ে ফিফা। তাতে পিছু হটেন ইংল্যান্ড, ওয়েলস, নেদারল্যান্ডস, ডেনমার্ক, সুইজারল্যান্ড ও জার্মানির অধিনায়করা। সবশেষ গতকাল জাপানের বিপক্ষে জার্মান অধিনায়ক ম্যানুয়েল ন্যয়ার সমকামিতা ইস্যুতে কোনো প্রতিবাদ দেখাননি। ‘ওয়ানলাভ’ স্টিকার দেখা যায়নি তার জার্সিতে।

কিন্তু প্রতিবাদের জায়গায় অনড় থাকল ইউরোপের একমাত্র দল বেলজিয়াম। দলটির অধিনায়ক ইডেন হ্যাজার্ড অ্যাওয়ে জার্সিতে ‘ওয়ানলাভ’ ট্যাগ নিয়েই মাঠে নামবেন। মঙ্গলবার রাতে ইএসপিএন ফুটবল একটি সূত্রের বরাত দিয়ে খবরটি নিশ্চিত করেছে। তবে গ্রুপপর্বে ‘ওয়ানলাভ’ স্টিকার সংবলিত জার্সিতে দেখা যাবে না বেলজিয়াম অধিনায়ককে। কারণ গ্রুপপর্বের তিনটি ম্যাচই তারা খেলবে লাল রঙের হোম জার্সিতে। অর্থাৎ বেলজিয়ানরা নক-আউট পর্বে উঠলে সেখানে প্রতিবাদ জানাবে। আপাতত এই বার্তাই দিয়ে রাখল ইউরোপের কালো ঘোড়ারা।

এর পরিণতি যে দলের ওপর প্রভাব ফেলবে সেটা পরিষ্কার। বাকি ৬ দেশের অধিনায়কেরা অবশ্য প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে হলুদকার্ড দেখতে নারাজ। ইংল্যান্ড অধিনায়ক হ্যারি কেন জানান, ভয়ে জার্সিতে ‘ওয়ানলাভ’ স্টিকার পরেননি তিনি। নেদারল্যান্ডস অধিনায়ক ভার্জিল ফন ডাইক জানান, ইচ্ছে ছিল ‘ওয়ানলাভ’ স্টিকারের জার্সি পরার।

advertisement