advertisement
advertisement
advertisement

দেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ আমরা জিতব

মির্জা ফখরুল, মহাসচিব, বিএনপি

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৫ জানুয়ারি ২০২৩ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৪ জানুয়ারি ২০২৩ ১১:৫২ পিএম
advertisement

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘আমরা আজ গণতন্ত্রের জন্য লড়ছি। আমাদের অসংখ্য নেতাকর্মী কারাগারে। চলমান আন্দোলনে আমাদের ১৫ নেতাকর্মী শহীদ হয়েছেন। কিন্তু দেশের মানুষ আজ ঐক্যবদ্ধ। আমরা বিশ্বাস করি, চলমান গণতান্ত্রিক

advertisement

আন্দোলনে আমরা সফল হব, বিজয়ী হব।’

advertisement 4

গতকাল মঙ্গলবার সকালে বনানীতে সংবাদকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে মির্জা ফখরুল এসব কথা বলেন। এর আগে আরাফাত রহমান কোকোর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বনানীতে কবর জিয়ারত করেন তিনি।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান হলেও আরাফাত রহমান কোকো রাজনীতিবিদ ছিলেন না। তিনি ছিলেন একজন সাধারণ ক্রীড়াবিদ। কিন্তু রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে তাকে মৃত্যুবরণ করতে হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘খালেদা জিয়ার সবচেয়ে আদরের সন্তান ছিলেন আরাফাত রহমান কোকো। আমরা দেখেছি কী করুণ অবস্থায় তাকে (কোকো) মৃত্যুবরণ করতে হয়েছে। দেশে ভালো চিকিৎসা না পেয়ে তাকে চলে যেতে হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘এই পরিবার (জিয়া) এ দেশের মানুষের স্বাধীনতার সার্বভৌমত্বের প্রতীক। এই পরিবার এ দেশের গণতন্ত্রের প্রতীক। আমরা আরাফাত রহমান কোকোর আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি।’

এ সময় মির্জা ফখরুলের সঙ্গে বিএনপি নেতা আমান উল্লাহ আমান, জয়নাল আবেদীন ফারুক, আবুল খায়ের ভূঁইয়া, তাবিথ আউয়াল, শামীম পারভেজ, নাজিম উদ্দিন আলম, মীর সারাফত আলী সপু, নবী উল্লাহ নবী, আব্দুল আলিম, যুবদলের মামুন হাসান, আবদুল মোনায়েম মুন্না, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জহির উদ্দিন স্বপন ও শহিদ উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে বিএনপির মিডিয়া সেলও গতকাল কোকোর কবরে শ্রদ্ধা জানায়। এ সময় মিডিয়া সেলের মোর্শেদ হাসান খান, শাম্মী আক্তার, মীর মোহাম্মদ হেলালউদ্দিন, আতিকুর রহমান রুমন, শায়রুল কবির খান, ফয়সাল মাহমুদ ফায়েজী, মীর শাহে আলম ও সৈয়দ ইজাজ কবির উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে কোকোর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গতকাল বিকালে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণের উদ্যোগে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপাসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে মোনাজাত হয়। এতে ভার্চুয়ালি যোগ দেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। এ ছাড়া স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, ড. আবদুল মঈন খান, সেলিমা রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, ডা. জাহিদ হোসেন ও আহমেদ আজম খান উপস্থিত ছিলেন।

মোনাজাতের আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে ড. মোশাররফ বলেন, ‘আরাফত রহমান কোকো রাজনীতিতে না থাকলেও দলের সবার সঙ্গে সুসস্পর্ক রেখে চলতেন। খালেদা জিয়াকে মাইনাস করতে এবং দেশে বিরাজনীতিকরণ করতে ওয়ান ইলেভেন সরকার খালেদা জিয়া, তারেক রহমান ও আরাফাত রহমানের ওপর নির্যাতন চালায়। সেই নির্যাতনে কোকো অসুস্থ হয়ে বিদেশে গেলেও সুস্থ হয়ে আর দেশে ফিরতে পারেননি। মালয়েশিয়ায় তার মৃত্যু হয়।’

advertisement