advertisement
Dr Shantu Kumar Ghosh
advertisement
Dr Shantu Kumar Ghosh
advertisement
advertisement

প্রতিবন্ধী শিশুর লাশ পুকুরে, মায়েরটি ঘরে

নাটোর প্রতিনিধি
১৬ মে ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৬ মে ২০১৯ ০৯:১১

নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার বাশিলা গ্রামে মা ও তার দুই বছরের শিশুপুত্রকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ খবর পেয়ে মায়ের লাশ ঘর থেকে এবং পুত্রের লাশ বাড়ির পুকুর থেকে উদ্ধার করেছে। নিহতরা হলেন ঢাকায় চাকরিরত বাশিলা গ্রামের মাহমুদুল হাসান মুন্নার স্ত্রী শারমিন আক্তার ও তার প্রতিবন্ধী ছেলে আবদুল্লাহ।

স্বজনদের দাবি, দুর্বৃত্তরা চুরি করতে এসে মা ও শিশুপুত্রকে হত্যার পর বাইরে থেকে দরজা আটকে দিয়ে গেছে। তবে এলাকাবাসীর দাবি, এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। কারণ ওই বাড়ির কিছুই চুরি হয়নি। আর পুলিশ বলছে, প্রাথমিকভাবে মা ও ছেলেকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কিন্তু কী কারণে কারা এ জোড়া হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে, তা এখনও জানা যায়নি। তবে ঘটনার রহস্য উদ্ঘাটনে কাজ শুরু হয়েছে।

নিহতের দেবর মাহবুবুল আলম মুক্তা ও দাদা শ্বশুর আমজাদ হোসেন জানান, শারমিন আক্তার ও তার প্রতিবন্ধী ছেলে আবদুল্লাহ গ্রামের বাড়িতে পরিবারের সঙ্গেই থাকতেন। মঙ্গলবার রাত ৩টার দিকে সেহরির সময় মাহমুদুল ইসলাম স্ত্রীকে ফোনে না পেয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। পরিবারের সদস্যরা ডাকতে এসে ঘরের দরজা বাইরে থেকে বন্ধ পান। পরে জালানা ভেঙে বেরিয়ে এসে শারমিন আক্তারের ঘর খোলা পান। এ সময় ঘরের মেঝেতে পড়েছিল শারমিনের লাশ। আর আবদুল্লাহকে পাওয়া যাচ্ছিল না।

থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে ঘর থেকে মা ও বাড়ির পুকুর থেকে আবদুল্লাহর লাশ উদ্ধার করে নাটোর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। পরিবারের সদস্যরা দাবি করেন, শারমিনের গহনা চুরি করতে এসে চোররা এ জোড়া হত্যাকা- ঘটিয়ে থাকতে পারে। কিন্তু এলাকাবাসী এটা মানতে নারাজ। তাদের দাবি, এটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড।

এলাকাবাসী আবুল দিল শাদ জানান, বাড়িতে জোর করে প্রবেশ করার কোনো আলামত নেই। তাই বাড়িতে চুরির মতো কোনো ঘটনা ঘটেছে বলে মনে হচ্ছে না। নলডাঙ্গা থানার ওসি শফিকুর রহমান জানান, ঘটনার তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে বিস্তারিত জানা যাবে।