advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

হংকংয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে রাতভর সংঘর্ষ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৯ নভেম্বর ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৯ ০২:০১
advertisement

হংকংয়ে পলিটেকনিক বিশ্ববিদ্যালয়ে রবিবার রাতভর সংঘাত-সংঘর্ষের পর পুলিশ চারদিক থেকে ঘিরে রেখেছে। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিক্ষোভকারীরা পালানোর সময় অনেককে আটক করেছে পুলিশ। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের চারপাশে বিক্ষোভে টিয়ারগ্যাস ও রবার বুলেট ব্যবহার করেছে পুলিশ। এর আগেও এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।

এই পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে পলিটেকনিক বিশ্ববিদ্যালয়ে নিরাপত্তা বাহিনী ও আন্দোলনকারীদের মধ্যে সৃষ্ট অচলাবস্থা দ্বিতীয় দিনে গড়িয়েছে। রাতে সংঘর্ষের সময় আন্দোলনকারীরা পুলিশের একটি গাড়ি পুড়িয়ে দেয়। এর আগে রবিবার বিকালে আন্দোলনকারীদের নিক্ষিপ্ত তীরে এক পুলিশ কর্মকর্তা আহত হন। রবিবার রাতের সংঘর্ষে ৩৮ জন আহত হয়েছেন বলে নগর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। পুলিশের জলকামান থেকে ছিটানো পানি গায়ে পড়ার পর কয়েকজন আন্দোলনকারীর শরীর পুড়ে যেতে দেখেছেন রয়টার্সের এক প্রত্যক্ষদর্শী সাংবাদিক। রাসায়নিক ব্যবহারজনিত কারণে এমনটি ঘটেছে বলে দাবি করেছেন তিনি।

এদিকে পুলিশ বিশ্ববিদ্যালয়টি কার্যত অবরুদ্ধ করে রেখেছে। শিক্ষার্থীরা বের হতে চাইলেই তাদের কাঁদুনে গ্যাস বা রবার বুলেটের মুখে পড়তে হচ্ছে। পুলিশের পক্ষ থেকে সতর্ক করা হয়েছেÑ যারা ভেতরে আছে তারা যেন অস্ত্রত্যাগ করে আত্মসমর্পণ করে। প্রায় ছয় মাস ধরে চলা হংকংয়ের অস্থিরতায় প্রথমবারের মতো তাজা গুলি ব্যবহার করা হতে পারে বলে সতর্ক করেছে পুলিশ। ‘দাঙ্গাকারীরা’ প্রাণঘাতী অস্ত্র ব্যবহার অব্যাহত রাখলে এমনটি করা হবে বলে জানিয়েছে তারা।

উল্লেখ্য, আসামি প্রত্যর্পণ বিলের বিরুদ্ধে গত জুন মাস থেকে হংকংয়ে আন্দোলন শুরু হয়।

advertisement