advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

শৈলকুপায় ডায়রিয়ার প্রকোপ শিশুরা আক্রান্ত হচ্ছে বেশি

শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি
৬ মে ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ৫ মে ২০২১ ২১:৫৩
advertisement

শৈলকুপায় ডায়রিয়া রোগের প্রকোপ বেড়েছে। প্রতিদিনই ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ রোগে আক্রান্ত হয়ে গত ২০ দিনে প্রায় ২০০ রোগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। এর মধ্যে শিশু রোগীর সংখ্যা বেশি।

জানা যায়, গরম আবহাওয়ার কারণে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা বেড়েছে। পাতলা পায়খানা ও বমির উপসর্গ নিয়ে প্রতিদিন শিশু রোগী ভর্তি হচ্ছে শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। গত ৬-৭ মাস বৃষ্টি না হওয়ায় প্রচ- গরমের কারণে এপ্রিল থেকে হঠাৎ করেই ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়ে যায়। ডায়রিয়া ওয়ার্ডে স্থান সংকুলান না হওয়ায় রোগীদের অনেক সময় হাসপাতাল করিডরের মেঝেতে শুয়ে থাকতে দেখা গেছে। এ অবস্থায় চিকিৎসা দিতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন নার্স, চিকিৎসক এবং কর্মচারীরা। ডায়রিয়া রোগীরা সম্পূর্ণ সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত চিকিৎসকরা হাসপাতালে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। অভিভাবকরা জানান, বাচ্চাদের হঠাৎ করে ডায়রিয়া শুরু হয়। বাধ্য হয়ে হাসপাতালে ভর্তি করেছে তারা।

কাতলা গাড়ির গ্রামের এনামুল জানান, তার শিশুর হঠাৎ করেই ঠা-া ও পাতলা পায়খানা শুরু হয় পরে তারা হাসপাতালে ভর্তি করেন।

শৈলকুপা হাসপাতালের আরএমও ডা. সুজায়েত হাসেন জানান, ডায়রিয়া রোগীদের সেবা প্রদানের জন্য সব ধরনের ওষুধ থাকলেও স্যালাইন, অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ ও বাচ্চাদের সিরাপ সংকট রয়েছে। তিনি আরও জানান, এসব ওষুধ হাসপাতালে না থাকার কারণে রোগীদের দিতে পারছে না। যাদের জন্য প্রয়োজন হচ্ছে তাদের ক্ষেত্রে এটা বাইরে থেকে কিনতে হচ্ছে। শৈলকুপা উপজেলা হাসপাতালের কর্মকর্তা ডা রাশেদ আল মামুন জানান, প্রচ- গরমের কারণে হাসপাতালে প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ জন ডায়রিয়া রোগী ভর্তি হচ্ছে তবে এদের মধ্যে শিশু রোগী বেশি ভর্তি হচ্ছে। কিন্তু বর্তমানে ১৫ দিনে প্রায় ১৫০ জন ডায়রিয়া রোগী ভর্তি হয়েছে। প্রতিনিয়ত শিশু রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। তবে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।

advertisement