advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

২০ বছর পালিয়ে থাকা ‘বাংলাদেশি’ মানবপাচারকারী ভারতে গ্রেপ্তার

আমাদের সময় ডেস্ক
১১ জুন ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১০ জুন ২০২১ ২৩:০০
advertisement

বহুদিন ধরে পুলিশের মোস্ট ওয়ান্টেড তালিকায় থাকা এক মানবপাচারকারীকে গ্রেপ্তার করেছে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ। তাদের দাবি, ওই ব্যক্তি বাংলাদেশের নাগরিক এবং তিনি অবৈধভাবে প্রায় ২০ বছর ধরে ভারতে বসবাস করছিলেন।

বার্তা সংস্থা এএনআইয়ের বরাতে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানিয়েছে, নির্ভরযোগ্য সূত্রের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গত ৭ জুন বিএসএফের গোয়েন্দা শাখার সদস্যরা কলকাতার গোজাডাঙ্গা সীমান্তে অভিযান চালিয়ে ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেন। এক বিবৃতিতে

বিএসএফ বলেছে, এক ব্যক্তিকে গোজাডাঙ্গা চেকপোস্ট দিয়ে আসতে দেখা যায়। সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে তাকে দাঁড় করিয়ে তল্লাশি করেন গোয়েন্দারা। এ সময় ওই ব্যক্তির কাছ থেকে দুটি মোবাইল ফোন, ভারতীয় সিম কার্ড, পাঁচটি বাংলাদেশি সিম কার্ড এবং বেশ কয়েকটি নকল আধার কার্ড পাওয়া যায়। গোয়েন্দা দল তাৎক্ষণিকভাবে তাকে আটক করে এবং আরও তদন্তের জন্য গোজাডাঙ্গা আউটপোস্টে নিয়ে আসে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ওই ব্যক্তি নিজের নাম হাসান গাজী (২৮) বলে জানিয়েছেন এবং বলেছেন, তিনি পশ্চিমবঙ্গের উত্তর চব্বিশ পরগনায় বসবাস করছিলেন।

ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, জিজ্ঞাসাবাদের সময় হাসান গাজী জানিয়েছেন, তিনি বাংলাদেশি নাগরিক এবং অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করে প্রায় ২০ বছর ধরে রয়েছেন। সেখানে খুকুমনি বিবি (২৫) নামে এক ভারতীয় নারীকে বিয়েও করেছেন অভিযুক্ত এ ব্যক্তি।

বিএসএফের তথ্যমতে, অভিযুক্ত পাচারকারীর স্থায়ী ঠিকানা বাংলাদেশের সাতক্ষীরা জেলার মোল্লাপাড়া গ্রাম। তিনি সরকারি নথিপত্র জাল করে এতদিন ভারতে বসবাস করছিলেন। তার কাছ থেকে অজ্ঞাত দুই নারীর নকল আধার কার্ডও উদ্ধার করা হয়েছে।

বিএসএফ জানিয়েছে, মানবপাচার চক্রের নামসহ এর সঙ্গে জড়িত অনেকের তথ্য দিয়েছেন গ্রেপ্তার হাসান গাজী। উদ্ধার করা জিনিসপত্রসহ তাকে বশিরহাট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

advertisement