advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

সু চির বিরুদ্ধে দুর্নীতির নতুন অভিযোগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১১ জুন ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১১ জুন ২০২১ ০০:৩০
advertisement

ফেব্রুয়ারির সামরিক অভ্যুত্থানের আগ পর্যন্ত মিয়ানমারের ক্ষমতায় থাকা অং সান সু চির বিরুদ্ধে দুর্নীতির নতুন অভিযোগ আনতে যাচ্ছে জান্তা সরকার। আনুষ্ঠানিকভাবে সু চির বিচার শুরুর আগে নতুন অভিযোগ আনার বিষয়টি সামনে এসেছে। আল জাজিরা।

আটকের পর সু চির বিরুদ্ধে একাধিক মামলা দায়ের করা হয়েছে। এরই মধ্যে তার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ আনা হয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুতর হচ্ছে ব্রিটিশ আমলের অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টে দায়ের করা অভিযোগ। এ ছাড়া অবৈধভাবে ছয়টি রেডিও আমদানি ও ব্যবহার এবং করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত বিধিনিষেধ ভঙ্গের অভিযোগ আনা হয়েছে। তার আইনজীবী মিন মিন সোয়ে জানিয়েছেন, সোমবার শুনানি শুরু হবে। এদিন বাদী ও সাক্ষীদের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হবে।

রাষ্ট্র পরিচালিত গ্লোবাল নিউ লাইট অব মিয়ানমারের এক প্রতিবেদনে এ নতুন অভিযোগ আনার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ডাউ খিন কাই ফাউন্ডেশনে দুর্নীতি দমন কমিশনের তদন্তে পদ ব্যবহার করে দুর্নীতির দায়ে সু চি দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। তাই তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন আইনে অভিযোগ আনা হয়েছে।

সু চি তার ক্ষমতা ব্যবহার করে দুর্নীতির অপরাধে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন। তাই তাকে দুর্নীতি দমন আইনের ৫৫ ধারায় অভিযুক্ত করা হয়। এ আইনে দোষী সাব্যস্ত হলে তার জন্য ১৫ বছরের কারাদ- হতে পারে। কমিশনের অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, ইয়াঙ্গুন অঞ্চলের সাবেক মুখ্যমন্ত্রীর কাছ থেকে ৬ লাখ ডলার ও স্বর্ণ ঘুষ হিসেবে নিয়েছেন সু চি। এ ছাড়া ফাউন্ডেশনের চেয়ারপারসন হিসেবে বেশ কয়েকটি জমি ও সম্পত্তি লিজের ঘটনায় দুর্নীতি হয়েছে। প্রতিবেদনটিতে আরও বলা হয়েছে, ভূমি ব্যবহারের অনুমোদন দেওয়ার ক্ষেত্রে আরও বেশ কয়েকজন কর্মকর্তাও দোষী বলে তদন্তে উঠে এসেছে।

advertisement