advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

করোনা কেড়ে নিল কবি নুরুল হককে

মদন (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি
২৪ জুলাই ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৪ জুলাই ২০২১ ১২:১১ এএম
advertisement

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন কবি নুরুল হক মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ... রাজিউন)। গত বৃহস্পতিবার বিকালে ৭৭ বছর বয়সে মারা যান তিনি। গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টায় নেত্রকোনার মদন উপজেলায় কবির নিজ গ্রাম বালালী ঈদগাহ মাঠে জানাজা শেষে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তার মরদেহ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। করোনায় আক্রান্ত হয়ে গত ৪ জুলাই শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ভর্তি হন কবি নুরুল হক। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি।

কবি নুরুল হক ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও ইডেন মহিলা কলেজের বাংলা বিভাগের সাবেক প্রধান। ১৯৪৪ সালে বালালী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ১৯৭১ সালে একটি বামপন্থি গেরিলা বাহিনীর কমান্ডার হিসেবে

স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয়ে গৌরবোজ্জ্বল অবদান রাখেন তিনি। ১৯৬৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করে শিক্ষকতা জীবন শুরু হয় তার। দেশের বিভিন্ন সরকারি কলেজে শিক্ষকতা শেষে ২০০৫ সালে ঢাকার ইডেন মহিলা কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান হিসেবে অবসর গ্রহণ করেন।

ষাটের দশকের উল্লেখযোগ্য কবিদের একজন নুরুল হক। তার উল্লেখযোগ্য কয়েকটি গ্রন্থ হলো- ‘সব আঘাত ছড়িয়ে পড়েছে রক্তদানায়’, ‘একটি গাছের পদপ্রান্তে’, ‘মুক্তিযুদ্ধের অসমাপ্ত গল্প’, ‘শাহবাগ থেকে মালোপাড়া’, ‘এ জীবন খসড়া জীবন’ এবং ‘কবিতাসমগ্র’।

এদিকে কবি নুরুল হকের প্রয়াণে শোক প্রকাশ করে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক মুহম্মদ নুরুল হুদা বিবৃতি দিয়েছেন। তিনি বলেন, নুরুল হক আমাদের কবিতাজগতের এক স্বতন্ত্র নাম। গত শতকের ষাটের দশকে বাংলাদেশের কবিতায় তার উজ্জ্বল আবির্ভাব। সব আঘাত ছড়িয়ে পড়েছে রক্তদানায়সহ কয়েকটি কাব্যগ্রন্থে কবি হিসেবে নুরুল হকের অনন্যতার স্বাক্ষর রয়েছে।

advertisement