advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

দেখা থেকে লেখা
অনবদ্য অপূর্ব প্রশ্নবিদ্ধ নিশো-মেহজাবিন

মঈন আব্দুল্লাহ
২৭ জুলাই ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৭ জুলাই ২০২১ ০৮:৩৩ এএম
advertisement

ঈদ এলেই নাটকের ভিড়ে মাথা ঘোরে। কয়েক বছর ধরে নাটকের সংখ্যা আগের চেয়ে তিনগুণ বেড়েছে। কিন্তু তারকা কি বেড়েছে? এমন প্রশ্নের উত্তর অনেকেই দিতে পারেননি। তারকা আসলে ঘুরেফিরে একই। আলোচিত বলেন আর সমালেচিত বলেন, একই মুখ দেখতে দেখতে আমরা ক্লান্ত। গল্পের কিংবা কনটেন্টের বৈচিত্র্য এলেও একই মুখ দেখতে হচ্ছে আমাদের। তাই নাটকের ভিড়ে মনে হয় নিজের মাথাই ঘোরে। কেন ঘোরে? আসল কারণ হচ্ছে প্রতিদিনই যদি ৪টি নাটক দেখতে হয় তার পরও শেষ হবে না ঈদের নাটক। ঈদের আগের দিন থেকে আমি নিয়মিত নাটক দেখার চেষ্টা করছি। প্রতিদিন যখনই সময় পাই নাটক দেখি। তার পরও মাত্র ১৫টি নাটক দেখতে পেরেছি। যার মধ্যে অপূর্ব, মেহজাবিন, আফরান নিশো, তানজিন তিশা, তাসনিয়া ফারিন, মুশফিক আর ফারহান, কেয়া পায়েলের নাটক দেখেছি। তারাই ঘুরেফিরে নাটকে অভিনয় করছেন। এবারের ঈদে এখনো মিশু সাব্বিরের নাটক দেখা হয়নি। জোভান, তৌসিফের একটি নাটক দেখেছি। তাহসানের দুটি নাটক দেখেছি। বেশি নাটক দেখা হয়েছে অপূর্ব ও মেহজাবিনের। এবারের ঈদে মেহজাবিন যেন নিজেকে ছাড়িয়ে যাওয়ার প্রতিযোগিতায় নেমেছেন। একেক নাটকে একেক রকম চরিত্রে দেখা গেছে তাকে। চরিত্রে বৈচিত্র্য ছিল। কিন্তু অভিনয় তো একই। মেহজাবিনের ভিন্নতা ছিল ‘চিরকাল আজ’ নাটকে। যেখানে অনবদ্য অভিনয় দেখিয়েছেন মেহজাবিন। আবার ‘ঘটনা সত্য’ নাটকে কাজের মেয়ের চরিত্রে মেহজাবিন অসাধারণ অভিনয় করেছেন। কিন্তু নাটকটি নিয়ে দেখা দিয়েছে বিতর্ক। এমনকি পরিচালক দুঃখ প্রকাশ করে নাটকটি ইউটিউব থেকে সরিয়ে নিতে বাধ্য হয়েছেন। কিন্তু পরিচালক-প্রযোজক বাদেও দায় এড়াতে পারেন না শিল্পীরাও। কারণ শিল্পীদের আরও সচেতন হয়ে কাজ করতে হবে। ঈদে ভালো কাজ করেও নিশো-মেহজাবিন জুটি নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে। অন্যদিকে একেবারে নিটোল প্রেমের কাহিনি ‘অন্য এক প্রেম’। এতে মেহজাবিন নিজেকে নিয়ে গেছেন অন্য উচ্চতায়। তিনি প্রেম করেন বেকার ছেলে অপূর্বর সঙ্গে। প্রেমের জন্য সবকিছু বিসর্জন দেন মেহজাবিন। নামের সঙ্গে নাটকটি চমৎকারভাবে নির্মাণ করেছেন সোহেল আরমান। অপূর্ব তার স্বভাবসুলভ অভিনয়ে নিজের জাত চিনিয়েছেন। আরও একটি নাটক হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছে। ‘আলো’ নামের নাটকে মেহজাবিনকে দেখা গেছে ট্রাফিক সার্জেন্ট হিসেবে। একজন মেয়ে পুলিশের দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে যেসব সমস্যার সম্মুখীন হন তাই ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। নাটকের শেষটা খুবই দুঃখজনক। অনেকদিন এই নাটকের রেশ মনের ভেতরে থেকে যাবে। এবার আসা যাক অপূর্বর কথায়। অপূর্ব এবারের ঈদে শুধু মেহজাবিনের সঙ্গেই নয়, সাবিলা নূর ও কেয়া পায়েলের সঙ্গেও সমানতালে অভিনয় করেছেন। শুধু তানজিন তিশার সঙ্গে কোনো নাটকে এখনো দেখা যায়নি। ‘আগডুম বাগডুম’ নামের নাটকে অপূর্ব দারুণ অভিনয় করেছেন। বড়লোকের মেয়ে সাবিলা নূরকে বিয়ে করে নাটকের সমাপ্তিটা অসাধারণভাবে করেছেন পরিচালক। আর এমন চরিত্রে অপূর্ব সব সময়ই অপ্রতিদ্বন্দ্বী। তিনি সবাইকে মুগ্ধ করে দেন। ‘শনির দশা’ নামের নাটকে অপূর্ব যেন সেই চিরচেনা যুবক। নাটকের সাইনবোর্ডে নিজেকে অন্য মাত্রায় নিয়ে গেছেন তিনি। আবার ‘মিস্টার অ্যান্ড মিসেস চাপাবাজ’ নাটকটি দেখলে অন্য এক অপূর্বকে দেখা যায়। একটা

 

মানুষ মিথ্যার আশ্রয় নিতে নিতে এতটাই নিচে নেমে যায় যখন মানবিক দিকটাও লোপ পায়। সেই চিত্রই দেখা গেছে। আর এমন চরিত্রে অপূর্বর জুড়ি মেলা ভার। অন্যদিকে আপনার হৃদয়ে প্রেম জেগে উঠবে ‘মন দরিয়া’ নাটকটি দেখলে। যেখানে গানের শিক্ষক হিসেবে ছাত্রী তাসনিয়া ফারিনের প্রেমে হাবুডুবু খেতে থাকে অপূর্ব। কিন্তু প্রেমের সফল পরিণতি হয় না। কিন্তু মনের গহিনে সেই প্রেমকে নিয়ে স্বপ্ন বুনতে থাকে অপূর্ব। প্রেমের করুণ কাহিনি বলা যায় এ নাটকটিকে। অসাধারণভাবে নিজেকে উপস্থাপন করেছেন তিনি। এবারের ঈদে অপূর্বর সেরা কাজ ‘২১ বছর পরে’ ও ‘শোকসভা’। ‘২১ বছর পরে’ নাটকটিতে মায়ের সঙ্গে অভিমানী এক যুবকের চরিত্রে প্রত্যাশার চেয়েও ভালো অভিনয় করেছেন তিনি। আর মা চরিত্রে মনিরা মিঠু তো মুগ্ধ করে দিয়েছেন। আবার সন্তানসম্ভবা নারীর চরিত্রে তাসনিয়া ফারিন অনবদ্য পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন। সব মিলিয়ে এ নাটকটি ঈদের সব নাটককে ছাড়িয়ে যাবে বলেই মনে হয়। আর ‘শোকসভা’ নাটকটিতে পরিচালক সঞ্জয় সমদ্দার সংগীত জগতের অপ্রিয় সত্য উম্মোচন করেছেন। একজন শিল্পীর চরিত্রে অপূর্ব যেন নিজেকে ছাড়িয়ে গেছেন। আর আফরান নিশো তো দিনকে দিন আরও পরিণত হয়ে উঠছেন। ‘কায়কোবাদ’ নাটকে সোফা তৈরির মিস্ত্রির চরিত্রে অন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন নিজেকে। সে সব ধরনের চরিত্রে অভিনয় করতে সক্ষম। তার প্রমাণ অনেক আগে থেকেই রেখে যাচ্ছেন। এবারও ব্যতিক্রম হয়নি। ‘ঘটনা সত্য’ নাটকে ড্রাইভারের চরিত্রে নিশো যেন অতুলনীয়। তার অভিনীত ‘প্লাস ফোর পয়েন্ট ফাইভ’ নাটকটিও মুগ্ধতা ছড়িয়েছে।

 

 

 

 

advertisement