advertisement
DARAZ
advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ে নারীদের ক্লাস বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক
২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ ১১:১৮ পিএম | আপডেট: ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ০৮:৫৬ এএম
পুরোনো ছবি
advertisement

কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ‘ইসলামি পরিবেশ তৈরি না হওয়া পর্যন্ত’ নারীদের ক্লাস বা কাজ করার অনুমতি দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য মোহাম্মদ আশরাফ ঘাইরাত। গতকাল সোমবার এই ঘোষণা দেন তিনি।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন’র প্রতিবেদনে বলা হয়, তালেবান নিযুক্ত এই উপাচার্য বিষয়টি নিয়ে টুইট করেছেন। আশরাফ ঘাইরাত টুইটে বলেন, ‘যতক্ষণ না প্রকৃত ইসলামি পরিবেশ সবার জন্য প্রদান করা হয়, ততক্ষণ পর্যন্ত নারীদের বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতে বা কাজ করতে দেওয়া হবে না। ইসলাম প্রথম।’

ঘাইরাত আরও বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রীদের শিক্ষাদানের জন্য পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করা হচ্ছে।’ তবে কবে নাগাদ এই পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে, তা উল্লেখ করেননি তিনি। তবে এই প্রক্রিয়া আফগান নারীদের জনজীবন থেকে বিচ্ছিন্ন করার সর্বশেষ পদক্ষেপ বলে জানিয়েছে সিএনএন।

কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, ‘নারী প্রভাষকের স্বল্পতার কারণে পুরুষ প্রভাষকদের পর্দার পেছন থেকে ক্লাস নেওয়ার পরিকল্পনা নিয়ে কাজ করা হচ্ছে। এভাবে ছাত্রীদের শিক্ষার জন্য একটি ইসলামি পরিবেশ তৈরি হবে।’

গত ১৫ আগষ্ট কাবুল দখল করে তালেবান। এর কিছুদিন পরই মন্ত্রিসভা গঠন করে তারা। সশস্ত্র এই গোষ্ঠী ক্ষমতায় আসার পরই দেশ ছেড়ে পালাতে থাকেন আফগানরা। দেশে নারী শিক্ষা, অধিকার ও কঠোর আইন নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়। আফগান পুরুষদের খেলাধুলার অনুমতি দিলেও নারীদের খেলাধুলার অনুমতি দেয়নি তালেবান। বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ালেখার অনুমতি দিলেও নারী-পুরুষকে বসতে হয় পর্দার আড়ালে। এর মধ্যেই ইসলামিক পরিবেশ সৃষ্টি না করা পর্যন্ত কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ে নারীদের জন্য ক্লাস ও কাজ করতে নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হলো।

টুইটারে কাআশরাফ ঘাইরাত বলেন, ‘আমি ঘোষণা করছি যে আমরা সত্যিকারের ইসলামি পরিবেশ থেকে উপকৃত হওয়ার জন্য মুসলিমপন্থী পণ্ডিত ও ছাত্রদের স্বাগত জানাব।’

advertisement