advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

চিঠিপত্র

১৮ অক্টোবর ২০২১ ১২:০০ এএম
আপডেট: ১৭ অক্টোবর ২০২১ ১১:০৩ পিএম
advertisement

সরকারি গাড়ির অপব্যবহার আর নয়

সরকারি অফিসের কাজের তদারকি করার জন্য গাড়ি দিয়ে থাকে সরকার। কিন্তু বিভিন্ন অফিসে ও দপ্তরে অধিকাংশ কর্মকর্তা এই সরকারি গাড়ি অফিসের কাজের থেকে তাদের ব্যক্তিগত কাজে বেশি ব্যবহার করে থাকেন। তারা তাদের ছেলেমেয়েদের স্কুলে ও কলেজে যাওয়া-আসা, বাজার করা, মার্কেট করা, বিউটিপার্লারে যাওয়া-আসা, বিভিন্ন ব্যক্তিগত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করা, তাদের গ্রামের বাড়িতে যাওয়া-আসা ইত্যাদি কাজে ব্যবহার করে থাকে, যা সম্পূর্ণ নীতিবহির্ভূত কাজ। এজন্য সরকারকে গাড়ির জ্বালানি তেল বাবদ বছরে কয়েকশ কোটি টাকা গচ্চা দিতে হয়। অথচ সরকারি টাকা মানে জনগণের টাকা, এভাবে সরকারি টাকা গচ্চার কুফল সাধারণ জনগণের ওপর প্রভাব পড়ে থাকে। এসব দেখে মনে হয় আমাদের দেশে দেশপ্রেমিক জনগণের বড়ই অভাব, সবাই দেখে না দেখার ভান করেন। এ যেন এক আজব দেশ!সুতরাং সরকারি অফিসের গাড়ির অপব্যবহার রোধ করে বছরে কয়েকশ কোটি টাকা গচ্চার হাত থেকে দেশকে রক্ষা করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও যোগাযোগমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

মো. মোশতাক মেহেদী

ডি/৩৯৩, সোনার তরী

হাউজিং এস্টেট, কুষ্টিয়া

লোডশেডিং থেকে পরিত্রাণ চাই

নরসিংদী জেলার শিবপুর উপজেলা দেশের অন্যসব উপজেলার মতো শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলার খেতাব জিতেছে। শিবপুর উপজেলা সীমানায় পা রাখতেই ‘স্বাগতম শতভাগ বিদ্যুতায়িত উপজেলা’ সাইনবোর্ড চোখে পড়বে। এর পর কারোরই এ উপজেলার বিদ্যুৎব্যবস্থা নিয়ে শঙ্কা থাকতে পারে না। কিন্তু বাস্তবতা ভিন্ন কথা বলে। এখানকার গ্রামগুলো রাতের অন্ধকারে নিমজ্জিত থাকে বেশিরভাগ সময়। অসুস্থ রোগীদের এই অসহনীয় গরম কিংবা রাতের এই অন্ধকারাচ্ছন্ন অবস্থায় ভোগান্তির পরিমাণ সবচেয়ে বেশি। কয়েকদিন ধরে এখানকার সরকারি হাসপাতাল, প্রাইভেট ক্লিনিক, ডাক্তারদের চেম্বারগুলো ঘুরলে দেখা মিলবে শুধু জ্বর নিয়ে হাজারো রোগীর ভিড় করছেন। এই অসহনীয় লোডশেডিংয়ের দরুন সবচেয়ে বেশি নাজেহাল অবস্থা এই রোগীদের। এখানে সামান্য একটু বৃষ্টি আর বাতাসে বিদ্যুৎ চলে যাওয়া তো খুবই স্বাভাবিক বিষয়। কিন্তু অন্যান্য সময় যখন এসব হচ্ছে না, তখনো বিদ্যুৎ না থাকাটা এবং দিন-রাতের অধিকাংশ সময় এই আসা-যাওয়ার খেলা অতিষ্ঠ করে তুলেছে জনজীবন। বিদ্যুৎ অফিসে ফোন করেও মিলছে না এই লোডশেডিংয়ের সদুত্তর। যথাযথ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি আশুব্যবস্থা গ্রহণের জন্য।

মঈনুল হক খান

মজলিশপুর, শিবপুর, নরসিংদী

advertisement
advertisement