advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

দক্ষিণ কোরিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম উদ্বোধন

অসীম বিকাশ বড়ুয়া,দক্ষিণ কোরিয়া
২৩ অক্টোবর ২০২১ ১০:৩৫ পিএম | আপডেট: ২৩ অক্টোবর ২০২১ ১০:৩৭ পিএম
দক্ষিণ কোরিয়ার বাংলাদেশ দূতাবাসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন। ছবি : আমাদের সময়
advertisement

দক্ষিণ কোরিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসে প্রথম কার্যক্রম চালুর মধ্য দিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য সর্বাধুনিক ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশের চতুর্থ মিশন হিসেবে গত বুধবার এই কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ড. তরুণ কান্তি শিকদার, দক্ষিণ কোরিয়ায় নবনিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. দেলোয়ার হোসেন এবং ই-পাসপোর্ট ও স্বয়ংক্রিয় বর্ডার নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনা প্রকল্পের অতিরিক্ত প্রকল্প পরিচালক কর্নেল আনোয়ার সাদাত আবু মো. ফুয়াদ পিএসসি।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের সঙ্গে সম্পৃক্ত ঢাকার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ ও দক্ষিণ কোরিয়ায় বসবাসরত বাংলাদেশ কমিউনিটির সদস্যবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত মো. দেলোয়ার হোসেন জানান, ই-পাসপোর্ট উদ্বোধন সিউলের বাংলাদেশ দূতাবাসের জন্য অত্যন্ত আনন্দ ও তাৎপর্যপূর্ণ। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ডিজিটাল বাংলাদেশ রূপরেখার আলোকে বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস সমূহে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চালু করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়াতে ই-পাসপোর্ট চালু হওয়ার ফলে প্রবাসী বাংলাদেশিদের জন্য ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট সংক্রান্ত প্রক্রিয়াসমূহ সহজতর ও নিরাপদ হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

রাষ্ট্রদূত আরও জানান, ই-পাসপোর্ট প্রক্রিয়ায় সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার হওয়ায় এর বিশ্বাসযোগ্যতা ও গ্রহণযোগ্যতা বহুগুণে বৃদ্ধি পাবে এবং বিশ্বের অনেক দেশ বাংলাদেশের সঙ্গে ভিসা সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষরে আগ্রহী হবে। এ ছাড়া বহির্বিশ্বে বাংলাদেশের পাসপোর্ট মান বৃদ্ধি পাবে।

কর্নেল আনোয়ার সাদাত আবু মো. ফুয়াদ পিএসসি ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম ও প্রকল্প সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. তরুণ কান্তি শিকদার বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম সমূহ তুলে ধরে বলেন, ‘সরকারের উন্নয়ন রূপরেখা বাস্তবায়নের একটি অন্যতম মাইলফলক হলো ডিজিটাল ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট সেবা কার্যক্রম।’

তিনি আরও বলেন, ‘সরকার অচিরেই বিদেশস্থ সকল মিশনসমূহে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চালু করণে ও বাংলাদেশের জনগণকে পাসপোর্ট সংক্রান্ত সেবা প্রদানে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।’ তিনি কয়েকজন আবেদনকারীকে ই-পাসপোর্ট এর এনরোলমেন্ট স্লিপ হস্তান্তর করেন।

সম্মানিত অতিথিগণ ফিতা কেটে বাংলাদেশ দূতাবাস সিউলের পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন ঘোষণা করেন এবং দূতাবাসের কনস্যুলার শাখায় স্থাপিত ইলেকট্রনিক পাসপোর্ট সিস্টেম পরিদর্শন করেন।

advertisement
advertisement