advertisement
advertisement

সব খবর

advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বোরাক রিয়েল এস্টেট পেল ডব্লিউটিসিএর লাইসেন্স

ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ঢাকা

নিজস্ব প্রতিবেদ
২৬ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৬ নভেম্বর ২০২১ ০২:৩৩ এএম
advertisement

বোরাক রিয়েল এস্টেট লিমিটেড ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ঢাকার লাইসেন্স পেয়েছে। ১০ নভেম্বর বোরাক রিয়েল এস্টেটের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহা. নূর আলী এবং ডব্লিউটিসিএর নির্বাহী পরিচালক রবিন ভ্যান পুয়েনব্রোয়েকছ এ সংক্রান্ত চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

চুক্তি অনুসারে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ঢাকা ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস অ্যাসোসিয়েশনের সব সুযোগ-সুবিধা আন্তর্জাতিক ব্যবসায়িক কাজে লাগাতে পারবে। ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার বিল্ডিংয়ে অত্যাধুনিক শপিং সেন্টার, ভার্চুয়াল রিয়েলিটি গেমিং জোন, ইন্টারন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড মাল্টিকুইজিং ফুড কোর্ট থাকবে। আরও থাকবে লাক্সারি ব্র্যান্ডেড রেসিডেন্স, সুপার লাক্সারি প্যান্থ হাউস, কলাম ফ্রি স্পেসিয়াস বলরুম/ এক্সিবিউশন হল/ ট্রেনিং সেন্টার, মাল্টিপারপাস হল, মিটিং রুম, প্রাইভেট ডাইনিং রুম, ব্রাইডাল স্যুট, স্পিসিয়াস প্রি ফাংশন। এ ছাড়া রুফটপ গার্ডেনসহ আন্তর্জাতিক মানের দুটি স্পেশালিটি

রেস্টুরেন্ট থাকবে।

এ ছাড়া থাকবে আন্তর্জাতিক মানের হেলথ ক্লাব (জিম/স্টিম/স্টিম বাথ/জ্যাকোজি)। ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ঢাকায় আরও থাকবে অত্যাধুনিক সুইমিংপুল। এর পাশেই থাকবে থ্রি মিল্ক ক্যাফে। থাকবে ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার মেম্বারশিপ ক্লাব। সেখানে থাকবে বিলাসবহুল মিটিং রুম, কনফারেন্স ফ্যাসিলিটি, প্রাইভেট মিটিং রুম, বিজনেস লাউঞ্জ। ১২টি ফ্লোরে অত্যাধুনিক অফিস স্পেস থাকবে। এর সদস্যরা বিশে^র ৩২৭টি দেশের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের সঙ্গে যুক্ত থাকবে। বিশে^র সব দেশের চেম্বার অব কমার্স, বিভিন্ন ব্যবসায়ী সংগঠন, এনজিও, অ্যাম্বাসি, ব্যাংক, বিনিয়োগ সংস্থার সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারবে। তাদের বিভিন্ন ব্যবসাসংক্রান্ত তথ্য নিতে পারবে, যা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যের ক্ষেত্রে অবারিত সুযোগ তৈরি হবে। ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ঢাকা হবে সারা বাংলাদেশের ব্যবসার প্রাণকেন্দ্র। রাজধানী ঢাকার প্রাণকেন্দ্র গুলশাল-২ (দ্য ওয়েস্টিন ঢাকার পাশে) ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ঢাকা থাকবে।

বাংলাদেশের অর্থনীতি দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে; সিঙ্গাপুরের অগ্রযাত্রার সঙ্গে তার তুলনা চলে। এইচএসবিসির সর্বশেষ গ্লোবাল রিসার্চে বলা হয়েছে, বর্তমানে যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে এই ধারা অব্যাহত থাকলে ২০৩০ সালের মধ্যে জিডিপির নিরিখে বিশ্বের ২৬তম বৃহৎ অর্থনীতির দেশ হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ। মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন, ভিয়েতনাম, সিঙ্গাপুরের মতো দেশ বাংলাদেশের পেছনে থাকবে। বাংলাদেশের সেই অগ্রযাত্রায় ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার ঢাকা বিশেষ অবদান রাখবে বলে সংশ্লিষ্টদের প্রত্যাশা।

বোরাক রিয়েল এস্টেট ইউনিক গ্রুপের অন্যতম বৃহৎ ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। শুরু থেকে বোরাক রিয়েল এস্টেট লিমিটেড মানুষের জীবনধারায় নতুন মান ও ধারার সৃষ্টির কাজ করে যাচ্ছে। প্রায় দুই যুগেরও বেশি সময় ধরে রাজধানী ও রাজধানীর বাইরে বিলাসবহুল ও মানসম্মত আবাসিক, বাণিজ্যিক, পাঁচতারকা হোটেল ও ভবন তৈরি করে যাচ্ছে। রাজধানীর প্রাণকেন্দ্রে অত্যাধুনিক সুযোগ-সুবিধাসংবলিত ২০ তলা ইউনিক ট্রেড সেন্টার চালুর ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করার কৃতিত্ব রয়েছে।

advertisement
advertisement