advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা
বিএনপিকে নজরে রাখবে আওয়ামী লীগ

মুহম্মদ আকবর
২৭ নভেম্বর ২০২১ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৭ নভেম্বর ২০২১ ০৩:০১ পিএম
advertisement

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার অসুস্থতাকে কেন্দ্র করে দলটির নেতাকর্মীরা যাতে কোনো গুজব ছড়াতে না পারে, সে দিকে নজর রাখবে আওয়ামী লীগ। অন্যদিকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি-জামায়াত যেন বিদ্রোহী প্রার্থীদের ওপর ভর করে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল করতে না পারে, সেদিক লক্ষ্য রাখতেও আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। গতকাল বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর সভা থেকে এ নির্দেশনা আসে বলে দলের একাধিক নেতা নিশ্চিত করেছেন।

আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর এক সদস্য জানান, ‘খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ইস্যুতে বিএনপি নেতারা নানা গুজব ছড়াচ্ছেন। এসব গুজবে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হতে পারে। এ অবস্থায় আওয়ামী লীগ নেতাদের খুবই সতর্ক হতে হবে। মিথ্যাচারের বিপরীতে মানুষকে সঠিক তথ্য দেওয়ার প্রস্তুতি নিতে সভায় আলোচনা হয়। এ ছাড়া বিএনপি নেতারা যেন এ ইস্যুতে কোনো রাজনৈতিক আন্দোলনের প্রস্তুতি নিতে না পারে, সে জন্য বিএনপি নেতাদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করার বিষয়েও আলোচনা হয়।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র জানায়, সম্পাদকমণ্ডলীর সভায় একাধিক নেতা বিতর্কিত ব্যক্তিকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ায় ক্ষোভ জানান। সভায় বাস ভাড়া অর্ধেক করতে শিক্ষার্থীদের দাবি যৌক্তিক বলে মত দেন কয়েকজন নেতা। সূত্র জানায়, রাজধানীতে যে কোনো আন্দোলন কর্মসূচি মোকাবিলায় ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ এবং সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীদের প্রস্তুত থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আগামী ২৯ নভেম্বর ঢাকা মহানগরের নেতাদের সঙ্গে কেন্দ্রীয় নেতাদের এক বৈঠক হবে। এতে আন্দোলনকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলার প্রস্তুতিসহ গুজবের বিরুদ্ধে সোচ্চার থাকার নির্দেশনা দেওয়া হবে।

চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জনপ্রিয় প্রার্থীদের মনোনয়ন দেওয়ার পক্ষে কথা বলেন তিন নেতা। তাদের ভাষ্য, জনপ্রিয়তা না থাকার পরও অনেক প্রার্থী মনোনয়ন পেয়েছে। এসব প্রার্থীকে বিজয়ী করতে গিয়ে দলকে নানা বদনামের ভাগিদার হতে হচ্ছে। আর তৃণমূলে সংগঠন ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এটি কোনোভাবেই কাম্য নয়। এ নিয়ে গভীরভাবে ভাবা উচিত।

সভায় একাধিক নেতা বলেন, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের গত দুই ধাপে অনেক বিদ্রোহী প্রার্থীকে স্থানীয়ভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে। কিন্তু স্থানীয় নেতারা এটি করতে পারেন না। এ জন্য বহিষ্কারের সুপারিশপত্র কেন্দ্রে অর্থাৎ দলের দপ্তরে পাঠানোর নির্দেশ দেওয়া হয়।

সভার আলোচ্যসূচি সম্পর্কে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেন, ‘বিআরটিসির বাসে শিক্ষার্থীদের ভাড়া ৫০ শতাংশ করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্যরা ধন্যবাদ জানান। এ ছাড়া সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে ছাত্রছাত্রীদের কাছ থেকে অর্ধেক ভাড়া রাখার জন্য বাস মালিক-শ্রমিকদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।’

আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আবদুস জানান, সভায় ডিসেম্বর ও জানুয়ারি মাসের কর্মসূচি নিয়ে আলাপ হয়। তিনি জানান, আগামী ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসে অনেক কর্মসূচি থাকবে। তাই ১৮ ডিসেম্বর দুপুরে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান থেকে বঙ্গবন্ধু ভবন (ধানমন্ডি ৩২) পর্যন্ত শোভাযাত্রা হবে। ১০ জানুয়ারি উপলক্ষে জনসভা হবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে।