advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পিরোজপুর
সাংবাদিক আমির খসরুর মাকে হত্যার অভিযোগ

পিরোজপুর প্রতিনিধি
১৭ মে ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৭ মে ২০২২ ০১:১৪ এএম
advertisement

পিরোজপুরের নিজ বাসা থেকে ভয়েস অব আমেরিকার বাংলাদেশ প্রতিনিধি আমির খসরুর মা সেতারা হালিমের (৭৪) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। পরিবারের অভিযোগ, রাতের কোনো এক সময় শ^াসরোধ করে তাকে হত্যা করে লাশ ঘরের মেঝেতে ফেলে রাখা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় পিরোজপুরের সিআইপাড়া এলাকার নিজ বাসভবন থেকে তার লাশ উদ্ধার করা হয়।

advertisement

নিহত সেতারা হালিম পিরোজপুর সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজের

সাবেক অধ্যক্ষ ও পৌরসভার সিআইপাড়া এলাকার মৃত প্রফেসর আবদুর হালিম হাওলাদারের স্ত্রী।

পিরোজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) থান্দার খায়রুল হাসান জানান, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে- শ^াসরোধ করে রাতের কোনো এক সময় তাকে হত্যা করে ঘরের ভেতরে ফেলে রাখা হয়েছিল। এ বিষয়ে পুলিশ তদন্ত করে দেখছে এবং আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

নিহতের মেয়ে সালমা আরজু জানান, শহরের সিআইপাড়া এলাকায় তাদের নিজেদের বাসভনের দ্বিতীয় তলায় তার মা একা থাকতেন। রবিবার রাতে সর্বশেষ তার মায়ের সঙ্গে কথা হয়। সোমবার সকালে তাদের বাসায় রঙ করার জন্য আবদুল কুদ্দুস নামে একজন রঙমিস্ত্রি বাসায় এসে দরজায় ডাকাডাকি করলেও তার মা দরজা না খুললে সে বাসার নিচের তলার ভাড়াটিয়ার কাছে বিষয়টি জানান। পরে অনেক সময় অতিবাহিত হলেও দড়রা না খুললে ভাড়াটিয়া ও রঙমিন্ত্রি পেছনের দরজা দিয়ে ডাকতে গেলে তারা দেখতে পান পেছনের দরজা খোলা। তখন তারা বাসার ভেতরে ঢুকে দেখতে পান সেতারা হালিম মেঝেতে পড়ে আছেন। এ সময় তাদের বাসার ভাড়াটিয়া তাকে বিষয়টি ফোন দিয়ে জানালে তিনি ও তার স্বামী বাসায় এসে দেখতে পান ঘরের মেঝেতে তার মা পড়ে আছেন এবং তার গলায় আঘাতের চিহ্ন আছে এবং ঘরের আলমারি ভাঙা ও আসবাবপত্র এলোমেলোভাবে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়ে আছে। এ সময় তারা পুলিশকে খবর দেন।

পিরোজপুর জেলা হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক স্বাগত হালদার জানান, মৃত অবস্থায় সেতারা হালিম নামে এক বয়স্ক নারীকে হাসপাতালে আনা হয়েছিল। তার গলায় চিকন কোনো কিছুর আঘাতের চিহ্ন আছে।

advertisement