advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অর্থপাচারের অভিযোগ
সাবেক মন্ত্রী মোশাররফের ভাইকে জামিন দেননি হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৮ মে ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৮ মে ২০২২ ১২:৫২ এএম
advertisement

ফরিদপুরের আলোচিত দুই হাজার কোটি টাকা পাচারের মামলায় গ্রেপ্তারকৃত সাবেক স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খোন্দকার মোশাররফ হোসেনের ভাই খোন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবরের জামিন মঞ্জুর করেননি হাইকোর্ট। তবে তাকে কেন জামিন দেওয়া হবে না, তা জানতে রুল জারি করা হয়েছে। এই আসামির জামিন চেয়ে করা আবেদনের শুনানি নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি

advertisement

কাজী মো. ইজহারুল হক আকন্দের বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে তার জামিন আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী অ্যাডভোকেট সৈয়দ মিজানুর রহমান। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষের শুনানিতে ছিলেন ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। এর আগে তার জামিন চেয়ে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় গত সোমবার আবেদন দায়ের করা হয়।

গত ২৪ মার্চ এ মামলায় খোন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবরের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেছিলেন বিচারিক আদালত। ওইদিন একই সঙ্গে ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের অব্যাহতিপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই ফরিদপুর প্রেসক্লাবের বহিষ্কৃত সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেলের জামিন আবেদনও নামঞ্জুর করেন বিচারক। এ ছাড়া বরকত ও রুবেলসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন শুনানির জন্য দিন ধার্য করেছেন আদালত।

২০২০ সালের ২৬ জুন সিআইডির পরিদর্শক এসএম মিরাজ আল মাহমুদ বাদী হয়ে অর্থপাচারের অভিযোগে ঢাকার কাফরুল থানায় বরকত ও রুবেলের বিরুদ্ধে মামলা করেন। মামলায় দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে অবৈধভাবে দুই হাজার কোটি টাকা উপার্জন ও পাচারের অভিযোগ আনা হয়। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ২০১০ সাল থেকে চলতি বছর পর্যন্ত ফরিদপুরের এলজিইডি, বিআরটিএ, সড়ক বিভাগসহ বিভিন্ন সরকারি বিভাগের ঠিকাদারি নিয়ন্ত্রণ করে বিপুল পরিমাণ অবৈধ সম্পদের মালিক হন বরকত ও রুবেল। এ ছাড়া তারা মাদক কারবারি ও ভূমি দখল করে অবৈধ সম্পদ করেছেন। এসি ও নন-এসিসহ ২৩টি বাস, ড্রামট্রাক, বোল্ডার ও পাজেরো গাড়ির মালিক হয়েছেন। সেই সঙ্গে দুই হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেন তারা।

গত ৩ মার্চ ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের অব্যাহতিপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকত ও তার ভাই ফরিদপুর প্রেসক্লাবের বহিষ্কৃত সভাপতি ইমতিয়াজ হাসান রুবেলসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে এ চার্জশিট জমা দেন পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) সহকারী পুলিশ সুপার উত্তম কুমার বিশ্বাস।

চার্জশিটভুক্ত অন্য আসামিরা হলেন- ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকার লেভী, আসিকুর রহমান ফারহান, খোন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবর, এএইচএম ফুয়াদ, ফাহাদ বিন ওয়াজেদ ওরফে ফাহিম, কামরুল হাসান ডেভিড, মুহাম্মদ আলি মিনার ও তারিকুল ইসলাম ওরফে নাসিম।

advertisement