advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ইবি শিক্ষার্থীদের দাবির মুখে হল বন্ধের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন

ইবি প্রতিনিধি
২৮ জুন ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৮ জুন ২০২২ ১২:২২ এএম
advertisement

পবিত্র ঈদুল-আজহা উপলক্ষে ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলসমূহ আগামী ৩০ জুন বন্ধ ঘোষণা করলেও শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ ও দাবির প্রেক্ষিতে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করতে বাধ্য হন প্রভোস্ট কাউন্সিল এবং আগামী ২ জুলাই থেকে বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়। গতকাল বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য, প্রকাশনা ও জনসংযোগ অফিসের উপ-পরিচালক মো. রাজিবুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। জানা যায়, গত রবিবার রেজিস্ট্রার দপ্তর হতে আগামী ৩০ জুন আবাসিক হলসমূহ বন্ধের প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তে শিক্ষার্থীরা ওই দিন রাত সাড়ে ৮টায় বিক্ষোভ মিছিল করেন। এ সময় তারা উপাচার্যের বাসভবনের সামনে বিক্ষোভ করলে প্রক্টরিয়াল বডি সেখানে উপস্থিত হন এবং গতকাল প্রক্টর অফিসে বিষয়টি নিয়ে বসার আশ্বাস দিলে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন স্থগিত করেন এবং দাবি আদায় না হলে কঠোর আন্দোলন করার ঘোষণা দেন।

advertisement 3

এদিকে একই দাবিতে বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হলের ছাত্রীরাও হল গেটের সামনে বিক্ষোভ করেন বলে জানা গেছে।

advertisement 4

পরে গতকাল সকাল সাড়ে ১০টায় প্রক্টর অফিসে হলসমূহের প্রভোস্ট ও শিক্ষার্থীদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন প্রক্টরিয়াল বডি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন, সহকারী প্রক্টর ড. শফিকুল ইসলাম, প্রভোস্ট কাউন্সিলের সভাপতি অধ্যাপক ড. ইয়াসমিন আরা সাথী প্রমুখ।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মাহবুবুল আরেফিন, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মিয়া মো. রাসিদুজ্জামান, লালন শাহ হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. ওবাইদুল ইসলাম প্রমুখ।

আলোচনাসভায় শিক্ষার্থীদের দাবি বিবেচনা করে প্রক্টরিয়াল বডি প্রভোস্টদের নিয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালামের সঙ্গে আলোচনা করবেন বলে জানান প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন।

পরবর্তীতে উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনা করে আগামী ২ জুলাই আবাসিক হলসমূহ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় বলে জানা যায় এবং ওই দিন সকাল ১০টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হলত্যাগের নির্দেশ দেওয়া হয়।

advertisement