advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

দুর্ঘটনার সীমানা জটিলতা নিরসন হবে পিলার গুনে

শাহজাহান আকন্দ শুভ
২৮ জুন ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৮ জুন ২০২২ ০৭:৫৫ পিএম
advertisement

পদ্মা সেতুতে কোনো দুর্ঘটনা কিংবা যে কোনো ধরনের অপরাধের ঘটনাস্থল বা থানার সীমানা জটিলতা নিরসন করা হবে পিলার (পিয়ার) গুনে। ৬ দশমিক ১৫০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে পদ্মা সেতু পড়েছে পদ্মা সেতু উত্তর, পদ্মা সেতু দক্ষিণ এবং শিবচর থানার অধিক্ষেত্রে। রবিবার সন্ধ্যায় পদ্মা সেতু ঘুরতে গিয়ে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মো. আলমগীর হোসেন ও মো. ফজলু নামে দুই বন্ধু আহত হন। পরে রাত ১০টায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে তাদের মৃত ঘোষণা করা হয়।

এই দুর্ঘটনার পর কোন থানা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটেছে তা নিয়ে তিন থানা পুলিশের মধ্যে একরকম টানাহেঁচড়া শুরু হয়। রবিবার গভীর রাত পর্যন্ত দুর্ঘটনার ঘটনাস্থল কোন থানার মধ্যে পড়েছে তা নিয়ে ঠেলাঠেলি চলছিল থানা পুলিশের মধ্যে। গতকাল সোমবারও তা অব্যাহত ছিল।

advertisement 3

পদ্মা সেতু উত্তর থানা পুলিশ সূত্র বলেছে, দুই বন্ধু নিহত হওয়ার দুর্ঘটনাস্থল পড়েছে পদ্মা সেতুর ২৭ ও ২৮ নম্বর পিলারে (পিয়ারে)। তাই এ ব্যাপারে তাদের কোনো কিছু করণীয় নেই।

advertisement 4

শিবচর থানার ওসি মিরাজ হোসেন গতকাল সন্ধ্যায় আমাদের সময়কে জানান, তাদের কাছে এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ নিয়ে আসেনি, তাই এ ব্যাপারে কোনো আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারেননি।

জানা গেছে, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের চার দিন আগেই দুই প্রান্তে উদ্বোধন করা হয় দুটি থানা। এর মধ্যে সেতুর মুন্সীগঞ্জের লৌহজং প্রান্তের মাওয়া এলাকায় মেদিনীমণ্ডল ও কুমারভোগ ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত হয়েছে পদ্মা সেতু উত্তর থানা। আর শরীয়তপুরের জাজিরা প্রান্তে পূর্ব ও পশ্চিম নাওডোবা ইউনিয়ন নিয়ে পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানা। সেতুর মাঝখান পড়েছে মাদারীপুরের শিবচর থানা।

পুলিশ সূত্র বলেছে, পদ্মা সেতুর ১ থেকে ১৫ নম্বর পর্যন্ত পিয়ার বা পিলার পড়েছে পদ্মা সেতু উত্তর থানার সীমানায়। ১৬ থেকে ৩২ নম্বর পিয়ার (পিলার) পর্যন্ত পড়েছে শিবচর থানার মধ্যে। আর ৩৩ থেকে ৪২ নম্বর পর্যন্ত পিয়ার (পিলার) পড়েছে পদ্মা সেতু দক্ষিণ থানার সীমানায়।

পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, এখন থেকে যে কোনো সড়ক দুর্ঘটনা, খুনখারাবি, ছিনতাই, অপহরণ, ডাকাতিসহ অন্যান্য অপরাধ পদ্মা সেতুর ওপর সংঘটিত হলে সংশ্লিষ্ট ঘটনাস্থল পিয়ার বা পিলার গুনেই নির্ধারণ হবে ঘটনাস্থল কোন থানার সীমানার মধ্যে পড়েছে।

মাদারীপুর জেলা পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল আমাদের সময়কে বলেছেন, পদ্মা সেতুর ১৬ থেকে ৩২ নম্বর পিলার শিবচর থানার মধ্যে পড়েছে। মাঝখানে কোনো ঘটনা ঘটলে এ ব্যাপারে তারা আইনগত ব্যবস্থা নিতে পারবেন। তবে পদ্মা সেতুতে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে হাইওয়ে পুলিশ যাতে ব্যবস্থা নিতে পারে এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নিতে তিনি পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পরামর্শ দিয়েছেন।

তার বক্তব্য, আমলযোগ্য অপরাধ বা দুর্ঘটনা হলে যে কোনো থানা পুলিশকে দ্রুত রেসপন্স করতে হবে; সেটা হাইওয়ে পুলিশও করতে পারে। কারণ পদ্মা সেতুর সড়ক হাইওয়ে পুলিশেরও অধিক্ষেত্র। পরবর্তীকালে মামলা যে থানায় হবে সে থানা পুলিশ তদন্ত করবে।

advertisement