advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পটিয়ায় গার্মেন্টস কর্মীকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ১

পটিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি
৪ আগস্ট ২০২২ ০৬:২৮ পিএম | আপডেট: ৪ আগস্ট ২০২২ ০৬:২৯ পিএম
প্রতীকী ছবি
advertisement

চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার কোলাগাঁও এলাকায় গার্মেন্টস কর্মীকে (১৬) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে হৃদয় হোসেন সাগর (২২) নামে এক সিএনজি অটোরিকশার চালককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ বৃহস্পতিবার ভোরে চট্টগ্রাম শহর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার হৃদয় উপজেলার কোলাগাঁও ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের চাপাড়া গ্রামের মৃত জাহাঙ্গীরের ছেলে।

এর আগে গত মঙ্গলবার ভিকটিমের পিতা বাদী হয়ে চারজনকে এজাহারনামীয় ও একজনকে অজ্ঞাত উল্লেখ করে মোট পাঁচজনের বিরুদ্ধে পটিয়া থানায় মামলা করেন। ওইদিন সকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভুক্তভোগীর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়।

advertisement

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী পটিয়া পৌর সদরের আমজুরহাট এলাকায় একটি গার্মেন্টসে চাকরি করেন। গত সোমবার সন্ধ্যায় চাকরি শেষে বাড়ি ফিরতে আমজুরহাট থেকে শান্তিরহাটে যান। সেখানে কুসুমপুরা এলাকায় যাওয়ার জন্য গাড়ির অপেক্ষায় ছিলেন। এ সময় একটি সিএনজি অটোরিকশায় ভিকটিমের পূর্ব পরিচিত চার-পাঁচ জন যুবক কোলাগাঁওয়ের চাপাড়া গ্রামের অ্যাডভোকেট দীপক কুমার শীলের প্রাচীর ঘেরা খালি জায়গায় নিয়ে তাকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে। পরে ভিকটিমের চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে আসে। খবর পেয়ে ভিকটিমের ভাই গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।

পটিয়া থানার পরিদর্শক ও কালারপোল পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘গ্রেপ্তার হৃদয় প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন। এ বিষয়ে বিস্তারিত তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। অপর আসামিরা পলাতক রয়েছেন। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

advertisement