advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

রংপুরে দূরপাল্লার বাসভাড়া বেড়েছে ১০০-২০০ টাকা!

ওয়াদুদ আলী,রংপুর ব্যুরো
৬ আগস্ট ২০২২ ০৬:১০ পিএম | আপডেট: ৬ আগস্ট ২০২২ ০৬:৩৭ পিএম
যাত্রীরা বলছেন, দূরপাল্লার এসি ও নন-এসি বাসে সিট প্রতি ১০০-২০০ টাকা বেশি নেওয়া হচ্ছে। ছবি: আমাদের সময়
advertisement

পরিবহন মালিকরা জ্বালানি তেলের নতুন দামের সঙ্গে সমন্বয় করে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগেই রংপুরে বাড়তি মূল্যে বিক্রি হচ্ছে বাসের টিকিট। আজ শনিবার ঢাকা কোচ স্ট্যান্ড, রংপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল, মেডিকেল মোড়, মডার্ন মোড়, পার্কের মোড়, মাহিগঞ্জ সাতমাথা, কলেজ রোড কুড়িগ্রাম বাসস্ট্যান্ডসহ অস্থায়ী বিভিন্ন স্ট্যান্ডে খোঁজ নিয়ে এ তথ্য জানা গেছে।

এদিন নিম্ন ও মধ্য আয়ের যাত্রীদের বাড়তি ভাড়া গুণে গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে। আজ সকালে রংপুর মহানগরীর কামারপাড়া ঢাকা কোচ স্ট্যান্ডে দূরপাল্লার বাসের টিকিট বিক্রিতে যাত্রীরা বেশি দাম নেওয়ার অভিযোগ করেন। যদিও টিকিট কাউন্টার থেকে এ অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে।

advertisement

তবে বেশ কিছু কাউন্টারে যাত্রীবেশে টিকিট চাইলে মূল্য বৃদ্ধির সত্যতা মিলেছে। জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় আজ সকাল থেকে ঢাকা কোচ স্ট্যান্ড ছেড়ে যাওয়া বেশ কয়েকটি দূরপাল্লার এসি ও নন-এসি বাসে সিট প্রতি ১০০-২০০ টাকা বেশি নিতে দেখা গেছে। তেলের দাম বাড়ায় এমনিতেই নাভিশ্বাস ওঠেছে সাধারণ যাত্রীদের, তার ওপর সিদ্ধান্ত ছাড়াই টিকিটের বেশি দাম নেওয়া ‘পকেট কাট ‘ হিসেবে দেখছেন তারা। নাবিল, এসআর, হানিফ, শ্যামলীসহ বেশ কয়েকটি কাউন্টারে দায়িত্বরত ম্যানেজাররা বলেন, এসি বাসে সিট প্রতি টিকিটে ২০০ টাকা ভাড়া বেড়েছে। তবে এখন পর্যন্ত নন-এসি বাসের ভাড়া বাড়ানো হয়নি।

আগে যেখানে একটি এসি বাসের সিটের জন্য টিকিট প্রতি নেওয়া হতো ১৩০০ টাকা, এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫০০ টাকা। নন-এসি বাসেও যাত্রীপ্রতি ১০০ থেকে ১৫০ টাকা বেশি ভাড়া হতে পারে বলে আভাস দিয়েছেন তারা।

নাবিল পরিবহনের কাউন্টারের সামনে কথা হয় ঢাকাগামী বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া মশিউর রহমানের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘অনলাইনে টিকিট কিনতে পরিবহনগুলোর সার্ভারে ঢোকা যাচ্ছে না। রাত থেকে সমস্যা হচ্ছে। এখন যে অবস্থা তাতে নতুন করে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত না হওয়া পর্যন্ত অনলাইনে টিকিট পাওয়ার নিশ্চয়তা নেই। বাধ্য হয়ে স্ট্যান্ডে এসে টিকিট করলাম। কিন্তু আগের চেয়ে ২০০ টাকা বেশি লাগল। তবে নন-এসি বাসের কাউন্টারে আগের দামে টিকিট বিক্রি হচ্ছে বলে জানান এই যাত্রী।’

শ্যামলী পরিবহনের শ্রমিক সোহেল রানা বলেন, ‘ঢাকায় এখনও পরিবহন মালিকরা ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়নি। কিন্তু তাদের হুকুমে কোনো কোনো কাউন্টারে বেশি দামে টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। হয়তো এর মধ্যে একটা সিদ্ধান্ত হবে। সেক্ষেত্রে ভাড়া বাড়লে ৭০০ টাকার টিকিট ৯০০ টাকা এবং ১৩০০ টাকার টিকিট ১৫০০ টাকা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।’

রাত ১০টার আগেই রংপুরের সব ফিলিং স্টেশন বন্ধ করে দেওয়া হয়। ছবি: আমাদের সময়

প্রজ্ঞাপন জারির পর ভোগান্তি

এদিকে দেশে জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ঘোষণা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে গতকাল শুক্রবার রাত ১০টার দিকে বন্ধ করে দেওয়া হয় রংপুরের পেট্রোল পাম্পগুলো। এর ফলে তেল কিনতে গিয়ে বিপাকে পড়েন গ্রাহকরা। একপর্যায়ে সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেন তারা। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

তেল কিনতে আসা মেহেদী হাসান নামের এক মোটরসাইকেল চালক বলেন, ‘তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে, রাত ১২টার পর কার্যকর হবে। কিন্তু রাত ১০টার মধ্যেই রংপুরের সব ফিলিং স্টেশন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।’

আরেক বিক্ষোভকারী খোরশেদ আলম বলেন, ‘রাত পোহালে প্রায় দ্বিগুণ লাভ। এই আশায় ১২টা বাজার আগেই ফিলিং স্টেশনের মালিকরা তেল দেওয়া বন্ধ করে দিলেন। কিন্তু প্রশাসন চুপচাপ। তাই আমরা রাস্তা বন্ধ করে প্রতিবাদ করছি।’

ফিলিং স্টেশনে তেল নিতে আসা মুসলিম উদ্দিন নামের এক ক্রেতা বলেন, ‘মোটরসাইকেলের তেল শেষ হওয়ায় তেল নিতে এসেছিলাম। এসে দেখি অনেকেই তেল না পাওয়ায় বিক্ষোভ করছেন। আমি নিজেও যেহেতু ভুক্তভোগী, তাই বিক্ষোভে অংশ নিয়েছি।’

রংপুর মেট্রোপলিটন কোতোয়ালী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। সড়কে যান চলাচল করছে ‘

সূত্র মতে, বিশ্ববাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে গতকাল শুক্রবার রাতে জ্বালানি তেলের দাম প্রায় ৫০ শতাংশ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। এতে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটার প্রতি ৩৪ টাকা, অকটেনে ৪৬ টাকা ও পেট্রোলে ৪৪ টাকা বেড়েছে। আজ সকাল থেকে জনজীবনে এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। এরই মধ্যে শুরু হয়েছে বাসের ভাড়া বাড়ানোর তোড়জোড়।

advertisement