advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

তেলের দাম বাড়াতে বাধ্য হয়েছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা
৮ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ৮ আগস্ট ২০২২ ০১:১৬ এএম
advertisement

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আবদুর রাজ্জাক বলেছেন, জ্বালানি তেলের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পেয়েছে, তা অস্বীকার করা যাবে না। কিন্তু দেশটাকে তো আমরা চরম বিপর্যয়ের দিকে ঢেলে দিতে পারি না। এর জন্য সরকার দায়ী নয়। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ যারা বাধিয়েছে, তারা এর জন্য দায়ী। এ অস্থিরতা মোকাবিলা করার জন্য সরকার তেলের দাম বাড়াতে বাধ্য হয়েছে। তিনি গতকাল কুমিল্লায় বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশন উন্নয়ন (বিএডিসি) অফিস প্রাঙ্গণে ফলজ বাগান, সৌরশক্তিচালিত ডাগওয়েল ও ড্রিপ সেচ প্রদর্শনীর প্লট স্থাপন উদ্বোধন ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাব দিচ্ছিলেন। মন্ত্রী বলেন, জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে কৃষিতে প্রভাব পড়বে। তবে কৃষকরা কষ্ট করে হলেও চাষ করবেন। কারণ দেশের কৃষকরা ত্যাগী। তারা স্ত্রীর গলার হার ও কানের দুল বিক্রি করেও চাষাবাদ করেন। গরু-ছাগল বিক্রি করে সার কিনে ফসল উৎপাদন করেন। মন্ত্রী আরও বলেন, তেলের দাম যাতে কমে যায়, যাতে করে আমরা শ্রীলংকার অবস্থায় না পড়ি, একটা সহনশীল অবস্থানে থাকতে পারি, সেই চেষ্টা করছে সরকার। তবে আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমলে বাংলাদেশেও কমানো হবে বলে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন। তেলের দাম বৃদ্ধিতে কৃষি সেক্টরে কিছুটা প্রভাব ফেলবে, কিন্তু তাতে কিছু করার নেই।

advertisement

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কৃষি সচিব মো. সায়েদুল ইসলাম, বিএডিসির গ্রেড-১ এর চেয়ারম্যান এএফএম হায়াতুল্লাহসহ কুমিল্লা অঞ্চলের কৃষি সেক্টরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

advertisement 4

বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের উদ্যোগে ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সহযোগিতায় ‘সিলেট, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম ও রাঙামাটি অঞ্চলের বিদ্যমান শস্য বিন্যাসে তেল ফসলের অন্তর্ভুক্তি এবং ধান ফসলের অধিক ফলনশীল জাতসমূহের উৎপাদন বৃদ্ধি’ শীর্ষক কর্মশালার আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব সায়েদুল ইসলাম, বিশেষ অতিথি ছিলেন কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের মেয়র আরফানুল হক রিফাত, বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন করপোরেশনের চেয়ারম্যান এএফএম হায়াতুল্লাহ, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. বেনজির আলম, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. দেবাশীষ সরকার, বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মো. শাহজাহান কবীর প্রমুখ।

advertisement