advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

সৌদি প্রবাসীদের বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠানোর আহ্বান

সৌদি আরব প্রতিনিধি
১২ আগস্ট ২০২২ ০৬:২৮ পিএম | আপডেট: ১২ আগস্ট ২০২২ ০৬:২৮ পিএম
সৌদি প্রবাসীদের বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠানোর আহ্বান রাষ্ট্রদূতের। ছবি : সংগৃহীত
advertisement

দেশের প্রয়োজনে বৈধ পথে ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে রেমিট্যান্স পাঠাতে সৌদি প্রবাসী বাংলাদেশিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী।

গতকাল রিয়াদের বাংলাদেশ দূতাবাসে ‘বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণের প্রয়োজনীয়তা, প্রতিবন্ধকতা ও সমাধানের উপায়’ শীর্ষক আয়োজিত এক সেমিনারে এ কথা বলেন তিনি। রাষ্ট্রদূত বলেন, সৌদি আরবে বসবাসরত প্রায় ২৬ লাখ প্রবাসী বাংলাদেশি বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠালে দেশে ডলারের রিজার্ভ আরও বেড়ে যাবে।

advertisement 3

রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী আরও বলেন, ‘গত অর্থবছরে বিদেশ থেকে দেশে রেমিট্যান্স এসেছে প্রায় ২১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। যার মধ্যে সৌদি আরব প্রবাসীরা পাঠিয়েছেন প্রায় ৪.৫ বিলিয়ন ডলার। দেশে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স পাঠানোর তালিকায় সৌদি প্রবাসীরা এগিয়ে। এ জন্য সৌদি প্রবাসীদের আন্তরিক ধন্যবাদ ও অভিনন্দন জানাই। রেমিট্যান্স পাঠানোর প্রতিবন্ধকতাগুলো দূর করে আরও সহজে কিভাবে দেশে রেমিট্যান্স পাঠানো যায় সেদিকে নজর দিয়েছে সরকার।’

advertisement 4

রাষ্ট্রদূত বিদেশে আসার আগে সবাইকে অবশ্যই একটি ব্যাংক একাউন্ট খুলে আসার আহবান জানান। তাহলে সহজেই যার যার নিজস্ব একাউন্টে টাকা পাঠানো ও তার হিসাব রাখা সহজ হবে। প্রবাসীদের সময়মত নিজের পাসপোর্ট ও ইকামার মেয়াদ হালনাগাদ রাখার পরামর্শ দেন রাষ্ট্রদূত। কারণ ইকামার মেয়াদ না থাকলে বৈধপথে রেমিট্যান্স পাঠানো সম্ভব হয় না। তাই এ বিষয়ে প্রবাসীদের সচেতন থাকার আহবান জানান তিনি।

রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠালে আপনার পরিবারের প্রয়োজন মেটানোর পাশাপাশি দেশের উন্নয়নে আপনার অবদান নিশ্চিত হয়। এছাড়া দেশে আপনার আয় বৈধ বলে বিবেচিত হয়। একই সঙ্গে সরকার ঘোষিত ২.৫ শতাংশ হারে প্রণোদনা পাওয়া যায়। প্রবাসী আয়ে সম্পূর্ণ করমুক্ত সুবিধা পাওয়া যায়।

সেমিনারে রিয়াদের ব্যবসায়ি, চিকিৎসক, প্রকৌশলী ও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ বিভিন্ন পেশার অভিবাসিরা অংশগ্রহণ করেন। সৌদি আরবের জেদ্দা, দাম্মাম, তাবুকসহ বিভিন্ন শহরের অভিবাসিরা জুমের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যোগ দেন। ২৬ জন প্রবাসী সেমিনারে তাদের বিভিন্ন মতামত, প্রশ্ন ও সুপারিশ তুলে ধরেন। প্রবাসীরা অভিবাসীদের সরকারের পেনশনের আওতায় আনার দাবি জানান। দূতাবাসের কর্মকর্তারা এ সময় প্রবাসীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন ও তাদের সুপারিশগুলো যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে পৌঁছে দেওয়া হবে বলেও আশ্বস্ত করেন।

অনুষ্ঠানে রেমিট্যান্স বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেন দূতাবাসের সোনালী ব্যাংক প্রতিনিধি মো জসীম উদ্দিন খান, শ্রম কাউন্সেলর রেজায়ে রাব্বি, ইকোনমিক কাউন্সেলর মুর্তুজা জুলকার নাঈন নোমান ও মিশন উপ-প্রধান আবুল হাসান মৃধা। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন দূতাবাসের কাউন্সেলর মো. বেলাল হোসেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা দেশে পাঠানো রেমিট্যান্স কিভাবে দেশের উন্নয়নে কাজে লাগে তার বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন। এছাড়া প্রবাসীদের জন্য সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন। দূতাবাসের ডিফেন্স এ্যটাশে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল গোলাম ফারুক অনুষ্ঠানে প্রবাসীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

অনুষ্ঠানে অনলাইনে যুক্ত হয়ে বক্তব্য প্রদান করেন জেদ্দাস্থ বাংলাদেশ কনস্যূলেটের কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ নাজমুল হক। তিনি প্রবাসীদের বৈধ পথে রেমিট্যান্স পাঠানোর আহবান জানান। সৌদি আরবে বিভিন্ন অঞ্চলে বসবাসরত সকল প্রবাসীদের সুবিদার্থে অনুষ্ঠানটি দূতাবাসের ফেসবুক পেজে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

advertisement