advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বর্ষসেরার লড়াইয়ে দর্শক মেসি

ক্রীড়া ডেস্ক
১৪ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০২২ ১২:১৫ এএম
advertisement

ব্যালন ডি’অরের ইতিহাসে সবচেয়ে উজ্জ্বল মুখ লিওনেল মেসি। রেকর্ড সর্বোচ্চ সাতবার ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকীর খেতাব জিতেছেন আর্জেন্টাইন খুদে জাদুকর। সবশেষ ট্রফিটাও শোভা পেয়েছে তার হাতে। ব্যক্তিগত নৈপুণ্যের শ্রেষ্ঠত্ব ধরে রাখার লড়াই তো দূরে থাক, এবার প্রাথমিক তালিকাতেও জায়গা পাননি তিনি। বিশ^জুড়ে কোটি কোটি মেসিভক্তের জন্য এর চেয়ে বড় ধাক্কা আর হতে পারে না।

গত ১৪ বছরে মেসি সাতবার এবং পাঁচবার ব্যালন ডি’অর জিতেছেন তার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ২০১৮ সালে লুকা মডরিচের হাতে ওঠে বর্ষসেরা ফুটবলারের মুকুট। ২০২০ সালে অবশ্য করোনা ভাইরাসের কারণে দেওয়া হয়নি এ ট্রফি। এর আগে ও পরে মেসি-রোনালদোর জয়জয়কার। প্রাথমিক তালিকায় দুজনের উপস্থিতি তো অবধারিতই।

advertisement

রোনালদো অবশ্য এবারও জায়গা করে নিয়েছেন সেরা ত্রিশে। কিন্তু ঠাঁই হয়নি মেসির। ২০০৫ সালের পর এ প্রথম প্রাথমিক তালিকায় নাম নেই আর্জেন্টিনা অধিনায়কের। ফুটবলারদের ‘অস্কার’খ্যাত এ প্রতিযোগিতায় নাম নেই মেসির ক্লাব সতীর্থ ও বন্ধু নেইমার জুনিয়রও। পিএসজির দুই সুপাস্টারের ব্যালন ডি’অরের লড়াইয়ে আসতে না পারাটা ভক্তদের জন্য স্রেফ হতাশার।

advertisement 4

মেসি ভক্তদের হতাশা আরও কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে প্রাথমিক তালিকায় রোনালদোর নাম দেখে। সোশ্যাল মিডিয়ায় মেসি ভক্তদের হাহাকার, ক্ষোভ, হতাশা সবই ফুটে উঠেছে। রোনালদো আছেন কিন্তু মেসি কেন নেই এ প্রশ্নের ঝড় বইছে নেট দুনিয়ায়।

ব্যালন ডি’অর কর্তৃপক্ষ ফ্রান্স ফুটবল সাময়িকী তাদের মতো করে ব্যাখ্যাটা দিয়েছে। শুক্রবার রাতে তালিকা প্রকাশের পর সংস্থাটির পক্ষে ইমানুয়েল বোয়ান বলেছেন, ‘তালিকা প্রস্তুতের সময় মেসি আলোচনায় ছিলেন। কিন্তু ব্যালন ডি’অরের জন্য নতুন যে মানদ- ঠিক করা হয়েছে, তা মেসির পক্ষে ছিল না; নতুন মডেলে পুরো বছরও নয়, এক মৌসুম বিবেচনা করা হয়েছে, যে কারণে ২০২১ সালের ১১ জুলাই কোপা আমেরিকা জয় বিবেচনায় আসেনি। পিএসজিতে তার প্রথম মৌসুম খুব বাজে কেটেছে।’ পিএসজিতে যোগ দেওয়ার পর ৩৪ ম্যাচে মেসি গোল করেছেন ১১টি। এর মধ্যে লিগে ২৬ ম্যাচে গোল ৬টি। সেখানে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের হয়ে রোনালদো গোল করেছেন ২৪টি। আগামী ১৭ অক্টোবর প্যারিসে সেরা ফুটবলারের নাম ঘোষণা করা হবে। এ লড়াইয়ে অনেক দূর এগিয়ে আছেন করিম বেনজেমা। উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগে করেছেন ১৫ গোল। স্প্যানিশ লা লিগাতেও ৩২ ম্যাচে ২৭ গোল করে গোল্ডেন বুট জিতেছেন বেনেজমা। রোনালদোকে রাখার যুক্তিতে বোয়ান বলেছেন, ‘পরিসংখ্যান (মেসির) ঠিক উল্টোটা বলছে।’

৩০ জনের প্রাথমিক তালিকা : ট্রেন্ট অ্যালেক্সান্ডার-আরনল্ড, ভিনিসিয়াস জুনিয়র, রবার্ট লেভানডফস্কি, কিলিয়ান এমবাপ্পে, করিম বেনজেমা, ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, রাফায়েল লেয়াও, কেভিন ডি ব্রুইনে, লুকা মডরিচ, আর্লিং হাল্যান্ড, ক্রিস্টোফ এনকুঙ্কু, মোহামেদ সালাহ, জশুয়া কিমিখ, বার্নার্ডো সিলভা, সন হিউং মিন, ফ্যাবিনহো, মাইক মিয়া, হ্যারি কেন, ডরিন নুনেজ, ফিল ফোডেন, সাদিও মানে, সেবাস্টেইন হলার, অ্যান্তনিও রুদিগার, দুসান ভøাহোভিচ, হোয়াও কানসেলো, ভার্জিল ফন ডাইক, থিবো কোর্তোয়া, লুইস দিয়াজ, রিয়াদ মাহরেজ, ক্যাসেমিরো।

advertisement