advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

কক্সবাজারে স্বামী-স্ত্রী গ্রেপ্তার
ঋণ পরিশোধের জন্য শিশু অপহরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক, কক্সবাজার
১৪ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০২২ ১২:১৫ এএম
advertisement

অপহরণের শিকার দুই বছরের এক শিশুকে কক্সবাজারের একটি গেস্টহাউস থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব। গত শুক্রবার রাতে র‌্যাব-১৫ কক্সবাজার ব্যাটালিয়নের একটি দল কলাতলী হোটেল-মোটেল জোনের মোহাম্মদীয়া গেস্টহাউসে অভিযান চালিয়ে ওই শিশুকে উদ্ধার করে। এ সময় ছুফুয়ান খান ওরফে রাহাত ও তার স্ত্রী কেয়াকে গ্রেপ্তার করা হয়। ছুফুয়ান খান মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার কবুতরখোলা এলাকার নাছির হাসানের ছেলে ও কেয়া বরিশালের হিজলা উপজেলার ওসমান মঞ্জিল এলাকার মো. কেরামত আলীর মেয়ে। ছুফুয়ান তার স্ত্রীকে নিয়ে ঢাকার দক্ষিণখানের মৌশাইর এলাকায় ভাড়া থাকতেন। গতকাল সকালে র‌্যাবের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানা গেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, অপহরণের শিকার শিশুটি কেয়ার আত্মীয়। ২০২০ সালের কেয়ার সঙ্গে ছুফুয়ানের বিয়ে হয়। বিয়ের সময় ছুফুয়ান ঢাকার একটি গার্মেন্টসে চাকরি করতেন। বিয়ের আট মাস পর ছুফুয়ানের চাকরি চলে যায়। পরে তিনি বিভিন্ন জায়গা থেকে ঋণ করে সংসার চালাতেন। এর মধ্যে ১০ আগস্ট এক পাওনাদারের কাছে ছুফুয়ানের ২০ হাজার টাকা পরিশোধ করার কথা ছিল। কিন্তু হাতে টাকা না থাকায় ছুফুয়ান ঋণ পরিশোধের ভয়ে ঘরের আসবাব ও অন্যান্য জিনিস বিক্রি করে বাড়ি থেকে পালিয়ে আত্মগোপনের সিদ্ধান্ত নেন।

advertisement

পরে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে ছুফুয়ান ও কেয়া শিশু অপহরণের পরিকল্পনা করেন। ১০ আগস্ট তারা এক আত্মীয়ের বাড়িতে যান। ওই বাড়ির দুই বছর বয়সী শিশুকে তুলে নিয়ে তারা কক্সবাজারের একটি গেস্টহাউসে অবস্থান করতে থাকেন। এরপর শিশুর পরিবারের কাছে কল করে তারা ২০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করেন। না হলে শিশুকে হত্যা করে লাশ গুম করে ফেলার হুমকি দেন।

advertisement 4

ওই শিশুর পরিবার দক্ষিণখান থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করে। অপহৃত শিশুসহ আসামিরা কক্সবাজার অবস্থান করছে জানতে পেরে র‌্যাবের সহযোগিতা চাওয়া হয়। পরে র‌্যাব-১৫ শুক্রবার রাতে গেস্টহাউসে অভিযান চালিয়ে অপহৃত শিশুকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করে। গ্রেপ্তার দুজনকে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তরের কার্যক্রম চলছে বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

advertisement