advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ভয় কেন ভারতের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৪ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০২২ ১২:৪২ এএম
advertisement

চীনের একটি বিতর্কিত গবেষণা জাহাজের শ্রীলংকায় প্রবেশ নিয়ে ভারত উদ্বেগ জানিয়ে আসছিল। এ নিয়ে কলম্বোর কাছে অভিযোগও দিয়েছিল নয়াদিল্লি। তবে দিল্লির উদ্বেগ সত্ত্বেও জাহাজটি শ্রীলংকায় প্রবেশের অনুমতি দিয়েছে দেশটির সরকার। শনিবার কলম্বোর পক্ষ থেকে এ অনুমতি দেওয়া হয়েছে। দিল্লির উদ্বেগ ছিলÑ জাহাজটি দিয়ে তাদের সামরিক অবকাঠামোতে নজরদারি চালাবে চীন। শ্রীলংকার সরকারি কর্মকর্তাদের বরাতে গতকাল শনিবার এ খবর জানিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি।

শ্রীলংকা হচ্ছেÑ ভারত মহাসাগরে অবস্থিত একটি দ্বীপরাষ্ট্র। ভারতীয় মহাসাগরে বেইজিংয়ের ক্রমবর্ধমান আধিপত্য বিস্তার এবং শ্রীলংকার ওপর চীনের প্রভাব জোরদার করার বিষয়টি নিয়ে নয়াদিল্লি বেশ উদ্বিগ্ন। নিজেদের প্রভাব বলয়ের মধ্যে চীনকে অন্যতম প্রতিপক্ষ মনে করে থাকে ভারত।

advertisement

শ্রীলংকার হাম্বানটোটা সমুদ্রবন্দরের নিয়ন্ত্রণ এখন চীনের একটি কোম্পানির হাতে। চীনা ওই জাহাজ হাম্বানটোটা বন্দরে প্রবেশের কথা ছিল ১১ আগস্ট। তবে ভারত তাতে আপত্তি জানায়। দিল্লির পক্ষ থেকে কলম্বোকে তখন বলা হয়, অনির্দিষ্টকালের জন্য জাহাজটির শ্রীলংকার বন্দরে প্রবেশ পিছিয়ে দেওয়ার বিষয়টি তারা যেন বেইজিংকে জানিয়ে দেয়। কিন্তু শ্রীলংকার হারবর মাস্টার নির্মল পি সিলভা জানিয়েছেন, শ্রীলংকার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে চীনের ওই জাহাজের হাম্বানটোটা বন্দরে প্রবেশ করার অনুমতিপত্র ইতোমধ্যে তিনি পেয়েছেন। যাতে বলা হয়েছে, ১৬ থেকে ২২ আগস্টের মধ্যে হাম্বানটোটা সমুদ্রবন্দরে জাহাজটির প্রবেশের ব্যাপারে অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

advertisement 4

১১২ কোটি মার্কিন ডলারের বিনিময়ে শ্রীলংকা চীনের কাছে ৯৯ বছরের জন্য হাম্বানটোটা গভীর সমুদ্রবন্দর লিজ দিয়েছে। বন্দরটি নির্মাণ করার জন্য চীনা একটি কোম্পানিকে ১৪০ কোটি ডলারের কিছু কম পরিশোধ করতে হয়েছিল শ্রীলংকার সরকারকে। ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হওয়ার পর পরই বন্দরটি লিজ দিয়ে দেয় শ্রীলংকা।

এদিকে ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনের এই জাহাজ মহাকাশ ও কৃত্রিম উপগ্রহ নজরদারি করার কাজে নিয়োজিত।

advertisement