advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বিদেশের সঙ্গে বৈঠক বরদাস্ত করবে না জান্তা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
১৪ আগস্ট ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০২২ ১২:৪২ এএম
advertisement

মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন জান্তা সরকার দেশটিতে সক্রিয় রাজনৈতিক দলগুলোকে আরেক দফা কোণঠাসা করতে চাইছে। জান্তা সরকার গঠিত ইউনিয়ন ইলেকশন কমিশন নতুন এক বিধি জারি করেছে যেখানেÑ বিদেশি ব্যক্তি ও সংগঠনের সঙ্গে রাজনৈতিক দলগুলো বৈঠক করতে পারবে না। আগামী বছর সম্ভাব্য নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এই বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। খবর ফ্রান্স ২৪।

মিয়ানমারে নির্বাচিত অং সান সুচির নেতৃত্বাধীন সরকারকে উৎখাত করে ২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ক্ষমতা গ্রহণ করে দেশটির সেনাবাহিনী। এরপর থেকে দেশটিতে অস্থিরতা বিরাজ করছে। দেশটির অর্থনীতিও বিপর্যস্ত। মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর অভিযোগÑ ২০২০ সালের সাধারণ নির্বাচনে কারচুপি করে সু চির দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্র্যাসি (এনএলডি) ক্ষমতায় এসেছিল। তবে আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষক মহল বলে আসছে, সর্বোপরি সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষা নির্বাচনের মধ্য দিয়ে সু চি ভূমিধস জয় পেয়েছে।

advertisement

এদিকে জান্তা সরকার নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে ইউনিয়ন ইলেকশন কমিশন গঠন করে। সেই কমিশন গত শুক্রবার জানিয়েছে, দেশে নিবন্ধিত ৯২টি রাজনৈতিক দল যদি বিদেশি ব্যক্তি বা কোনো সংগঠনের সঙ্গে বৈঠক করতে চায়, তা হলে তাদের অনুমতি নিতে হবে। বিবৃতিতে কমিশন আরও জানিয়েছেÑ রাজনৈতিক দলগুলোর উচিত আইনের প্রতি সম্মান জানানো। কোনো দল যদি এতে ব্যর্থ হয়, তা হলে তাদের নিবন্ধন বাতিল করা হবে।

advertisement 4

এদিকে মিয়ানমারের রাজনৈতিক দলগুলো নতুন এই আদেশের নিন্দা জানিয়েছে। এনএলডির সাবেক আইনপ্রণেতা সোয়ে থুরা তুন বলেছেনÑ এই নিয়ম অগণতান্ত্রিক ও সংগঠন করার সাংবিধানিক অধিকারের পরিপন্থী। অপর দল পিপলস পার্টির প্রধান কো কো গি এ সম্পর্কে বলেনÑ এই ঘোষণা নজিরবিহীন। মিয়ানমারের পরবর্তী নির্বাচন গণতান্ত্রিক হবেÑ এই ঘোষণা সেই ইতিবাচক ইঙ্গিত দেয় না। তিনি আরও বলেন, আমরা মনে করি, এই পদক্ষেপ আসন্ন নির্বাচন ও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার প্রতি মিয়ানমারের জনগণ ও আন্তর্জাতিক সংস্থার আস্থায় বড় ধরনের ফাটল ধরাবে। গত সপ্তাহে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন সামরিক সরকারের আয়োজনে আগামী বছর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ‘প্রহসনের নির্বাচন’ প্রত্যাখ্যান করতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

advertisement