advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

বাল্যবিয়ে থেকে মুক্তি

আমাদের সময় ডেস্ক
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১১:২৯ পিএম
advertisement

ভারতের রাজস্থানে রেখা নামে এক তরুণীকে ছোটবেলায় বিয়ে দিয়েছিলেন বাড়ির লোক। কিন্তু প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার পর সেই বিয়ে মানতে চাননি ওই তরুণী। সেই বিয়ে থেকে মুক্তি পেতে শেষ পর্যন্ত কোর্টের দ্বারস্থ হন রেখা। অবশেষে শৈশবে হওয়া সেই বিয়ে বৈধ নয় বলে রায় দিয়েছেন রাজস্থানের

advertisement 3

আদালত। এতে ২০ বছর পর সেই বিয়ে থেকে মুক্তি পেলেন ওই তরুণী।

advertisement 4

জানা গেছে, বাড়ির লোকজন স্থানীয় এক বালকের সঙ্গে বিয়ে দিয়ে দেন রেখার। বিয়ে হয়ে গেলেও বাপের বাড়িতেই থাকতেন রেখা। কিন্তু বছরখানেক আগে রেখাকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ে করার জন্য চাপ দিতে থাকেন শ্বশুরবাড়ির লোক। ছোটবেলায় বিয়ে হলেও বড় হওয়ার পর তাদের ফের একবার বিয়ে দেওয়ার প্রথা রয়েছে রাজস্থানের কিছু কিছু এলাকায়। প্রথাটির নাম ‘গৌনা’। রেখা এ প্রথায় আবদ্ধ হতে রাজি হননি।

পরে এ বিয়ে থেকে মুক্তি চেয়ে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার দ্বারস্থ হন রেখা। স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার এক কর্তার দাবি, রেখা বিয়েতে রাজি না হওয়ায় শ্বশুরবাড়ির লোক পঞ্চায়েত বসান। পঞ্চায়েতে বলা হয়, বিয়ে অস্বীকার করলে ১০ লাখ রুপি ‘ক্ষতিপূরণ’ দিতে হবে। উপায় না দেখে রাজস্থানের একটি কোর্টে যান রেখা। রেখার আবেদনে সাড়া দিয়ে কোর্ট জানিয়ে দিয়েছেন, এক বছর বয়সে হওয়া সেই বিয়ে আইনসিদ্ধ নয়।

advertisement