advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

মুন্সীগঞ্জে পুড়িয়ে দেওয়া হলো সাবেক উপমন্ত্রীর ভাগ্নের কারখানা

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:০১ এএম
ছবি: আমাদের সময়
advertisement

মুন্সীগঞ্জে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের পর গভীর রাতে সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাইয়ের ভাগ্নের সুতার কারখানায় অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। বুধবার রাত দেড়টার দিকে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাইয়ের ভাগ্নে নিজাম উদ্দিনের কারখানায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় কারখানাসহ পাশের অন্তত পাঁচটি বসতঘর আগুনে পুড়ে গেছে।

এদিকে শহরের উপকণ্ঠ মুক্তারপুর পুরাতন ফেরিঘাটে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় দেড়-সহস্রাধিক আসামি করে থানায় পৃথক দুটি মামলা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে সদর থানায় ওই দুটি মামলা রুজু করা হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ ও অর্থ) সুমন দেব মামলা রুজুর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

advertisement 3

তিনি জানান, পুলিশের ওপর হামলা, অস্ত্র লুটের চেষ্টা ও সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার ঘটনায় সদর থানায় এসআই মাঈনউদ্দিন বাদী হয়ে জেলা বিএনপির সদস্য সচিব কামরুজ্জামান রতনকে প্রধান আসামি করে দলের ৩১৩ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত পরিচয় আরও ১ হাজার ২০০ জনকে আসামি করে এ মামলা করেন। আটক ২৪ জনকে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। আগের দিন বুধবার দিনগত রাতে মুক্তারপুরসহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের আটক করে। তাদের ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে গতকাল সন্ধ্যায় আদালতে পাঠানো হয়।

advertisement 4

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরও জানান, মুক্তারপুর এলাকার বাসিন্দা শ্রমিক লীগকর্মী আব্দুল মালেক বাদী হয়ে দোকানপাট ভাঙচুর ও মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় আরেকটি মামলা করেন। এতে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাইয়ের ছোটভাই ও সদর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক মহিউদ্দিন আহমেদকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। মামলায় ৫২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আসামি করা হয়েছে আরও ২০০ জনকে।

স্থানীয়রা জানান, শহরের উপকণ্ঠ মুক্তারপুর এলাকার পুরাতন ফেরিঘাটে বুধবার বিকালে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে মুক্তারপুরসহ আশপাশের এলাকাগুলোতে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছিল। মানুষ যে যার ঘরে ঘুমিয়ে ছিল। মুন্সীগঞ্জ শহরের উপকণ্ঠ মীরেশ্বরাই গ্রামে গভীর রাতে আগুনের পোড়া গন্ধে তাদের ঘুম ভেঙে যায়। দেখতে পান নিজাম উদ্দিনের সুতার কারখানায় দাউ দাউ করে জ্বলছে আগুন। ওই আগুন পার্শ্ববর্তী ঘরগুলোতেও ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাইয়ের ভাগ্নে ও জেলা যুবদলের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. নিজাম উদ্দিন অভিযোগ করেন পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের জের ধরেই তার সুতার কারখানায় আগুন দেওয়া হয়েছে। সদরের পঞ্চসার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম মোস্তফার লোকজন সুতার কারখানায় আগুন দিয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। তার দাবি, আগুনে তার ৭০-৮০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা বিএনপি নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন।

পঞ্চসার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা আগুন দেওয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন। তিনি বলেন, পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় আমরা চিন্তিত। আমরা শান্তিপূর্ণ অবস্থানে আছি।

এদিকে আগুনে সুতার কারখানার পার্শ্ববর্তী রমজান মিয়া ও রেশিয়া বেগমের বসতঘর পুড়ে গেছে। রমজান মিয়া বলেন, বিএনপির সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়েছে। আমরা তো বাড়িতেই ছিলাম। আর ওই ঘটনার জের ধরে বিএনপি নেতার ভাগ্নে সুতার কারখানায় আগুনে দিল। সেই আগুনে আমাদেরও ঘর পুড়ে গেল।

মুন্সীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার আব্দুর রকিব জানান, গভীর রাত ২টার দিকে আগুনের খবর পান তারা। তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে ছুটে গেছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। দীর্ঘ সময় চেষ্টা চালিয়ে ভোরে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন তারা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুমন দেব বলেন, সুতার কারখানায় আগুনে দেওয়ার সময় সেখানে কোনো পুলিশ ছিল না। কারা আগুন দিয়েছে তা জানা নেই। ক্ষতিগ্রস্তদের পক্ষ থেকে অভিযোগ দেওয়া হলে খতিয়ে দেখা হবে। ঘটনার সঙ্গে যারাই জড়িত থাকুক তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে পুলিশের ওপর বিএনপি নেতাকর্মীদের হামলার প্রতিবাদে গতকাল আওয়ামী লীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের ব্যানারে পৃথক বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করা হয়েছে। বিকাল ৫টার দিকে শহরের পুরাতন কাছারি এলাকায় প্রতিবাদ সমাবেশ করে জেলা আওয়ামী লীগ। এতে বক্তৃতা করেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।

এ ছাড়া এদিন সকালে শহরের হাটলক্ষ্মীগঞ্জ এলাকা থেকে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের ব্যানারে প্রতিবাদ মিছিল বের করে। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে থানারপুল এলাকায় এসে সমাবেশে মিলিত হয়। এতে অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা করেন জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আল-মাহমুদ বাবু ও জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মাওলা তপন।

advertisement