advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পুলিশের হাতে আগ্নেয়াস্ত্রসহ সাত ডাকাত গ্রেপ্তার

বরিশাল ব্যুরো
২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০১:০১ এএম
advertisement

ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ডাকাতির সময় ব্যবহৃত আগ্নেয়াস্ত্র ও ধারালো অস্ত্রসহ ডাকাতদলের সাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে বরিশালের গৌরনদী থানা পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে ডাকাতির লুণ্ঠিত স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ টাকা। গতকাল বেলা ১১টায় বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন পুলিশ সুপার ওয়াহিদুল ইসলাম।

advertisement 3

তিনি জানান, গৌরনদী থানার কেফায়েতনগর এলাকার একটি বসতবাড়িতে গত ১১ জুন মধ্যরাতে একদল ডাকাত হানা দেয়। এ সময় তারা বাড়ির জানালার গ্রিল কেটে ওই ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে এবং বাড়ির সব সদস্যের হাত-পা বেঁধে ও মুখে কাপড় দিয়ে হত্যার হুমকি দিয়ে স্বর্ণালঙ্কার, মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা লুণ্ঠন করে। এ ঘটনায় ওই বাড়ির বাসিন্দা তানিয়া বেগম বাদী হয়ে গৌরনদী থানায় মামলা দায়ের করেন।

advertisement 4

মামলার সূত্র ধরে তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হেলাল উদ্দিনের নেতৃত্বে গৌরনদী থানা পুলিশের একটি টিম ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ডাকাতদলের সাত সদস্যকে গ্রেপ্তার করে। ইতোমধ্যে দুজন ডাকাত সদস্য স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে বরিশাল আদালতে।

গৌরনদী থানার ওসি মো. আফজাল হোসেন বলেন, তিন দিনের অভিযানে ডাকাতদলের সর্দার বরগুনা জেলার আমতলী উপজেলার কলাগাছিয়া এলাকার আমজেদ হাওলাদারের ছেলে মো. দেলোয়ার হোসেন দিলুকে (৪৭) গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি বলেন, গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে রবিউল ইসলাম ওরফে পারভেজ ও মোতালেব মীরা ওরফে পনু গৌরনদী থানায় দায়েরকৃত ডাকাতির সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়ে বুধবার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

এ ছাড়া গ্রেপ্তারকৃত ডাকাতদলের সর্দার মো. দেলোয়ার হোসেন ওরফে দিলু ও হারুন ওরফে তৈয়ব আলীর স্বীকারোক্তি অনুযায়ী ঢাকার পূর্বজুরাইন এলাকার দুলাল স্বর্ণকারের মালিকানাধীন সুমাইয়া জুয়েলার্স নামক দোকান থেকে ডাকাতির ঘটনায় লুণ্ঠিত স্বর্ণালঙ্কার উদ্ধার করা হয়েছে। পাশাপাশি তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ডাকাতির লুণ্ঠিত স্বর্ণালঙ্কার কেনাবেচার সহযোগী মো. শাহীন আলমকেও গ্রেপ্তার করা হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. শাজাহান হোসেন এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

advertisement