advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

আরেক মেয়ের নিরাপত্তা চাইলেন অদিতির মা
নোয়াখালীতে স্কুলছাত্রী হত্যার বিচার দাবি সড়ক অবরোধ

নোয়াখালী প্রতিনিধি
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম | আপডেট: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১১:২৮ পিএম
advertisement

তাসনিয়া হোসেন অদিতা হত্যার প্রতিবাদে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীদের আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠেছে নোয়াখালী। হত্যাকারী কোচিং শিক্ষক আবদুর রহমান রনির ফাঁসির দাবিতে গতকাল রবিবারও সড়ক অবোরোধ করে বিক্ষোভ, মানববন্ধন করেন শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। এদিকে স্বামী মারা যাওয়ার পর সম্পদ দখলে নেওয়ার জন্য পারিবারিকভাবে নানা অত্যাচার-

advertisement

নির্যাতন চলছে বলে অভিযোগ নিহত ছাত্রীর মায়ের। তিনি বলেছেন, ‘আমার মেয়েটিকে যে বা যারা হত্যা করেছে তাদের ফাঁসি চাই। এখন আমার আর একটা মেয়ে আছে। তার অনেক সমস্যা। তার একটা কিডনি নেই, একটা পা নেই। আমার এ মেয়েকে তার চাচাতো ভাই ধর্ষণের চেষ্টা করেছে। এ জন্য আমি বড় মেয়েকে ঢাকায় আমার ভাইদের কাছে পাঠিয়ে দিই। আমি এখন আমার এ মেয়ের নিরাপত্তা চাই।’ শনিবার রাতে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে এভাবেই তিনি নিজের ও মেয়ের নিরাপত্তাহীনতার কথা তুলে ধরেন।

advertisement 4

তিনি আরও বলেন, ‘আমার মেয়েটাকে (নিহত ছাত্রী) এলাকার কিছু বখাটে ছেলে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করত, নানা হুমকি-ধমকি দিত। এসব বিষয়ে এলাকার আশপাশের মানুষের কাছে গিয়েছি। নোয়াখালী পৌর মেয়রের কাছেও গিয়েছিলাম। বিচার চেয়েছি, কেউ বিচার করেনি।’

জানা যায়, গতকাল রবিবার দুপুর ১টা থেকে ২টা পর্যন্ত নোয়াখালীর জেলা শহর মাইজদির প্রধান সড়ক অবরোধ করে এ কর্মসূচি পালন করেন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। এ সময় স্কুলছাত্রী তাসনিয়া হত্যাকা-ে জড়িত আসামির দ্রুত সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি করেন আন্দোলনকারীরা। একই সঙ্গে কিশোর গ্যাংসহ শিক্ষার্থীদের উত্ত্যক্তকারী সব বখাটে ও অপরাধীকে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান। আন্দোলনকারীরা মিছিল নিয়ে জেলা শহর মাইজদির প্রধান সড়ক টাউন হল মোড় অবরোধ করে রাখেন। এ সময় মাইজদি-সোনাপুর ও বেগমগঞ্জ সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে যানযট সৃষ্টি হয়। পরে তারা পুলিশের অনুরোধে সড়ক ছেড়ে দেয় এবং মিছিল নিয়ে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে গিয়ে অবস্থান নিয়ে সেখানে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

এর আগে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে নোয়াখালী জিলা স্কুল, হরিনারায়ণপুর উচ্চবিদ্যালয়, আল ফারুক স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং মানবিক যুব সংঘ, নোয়াখালী ইউনিয়নের উদ্যোগে শহরের টাউন হল মোড়ে মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। প্রতিষ্ঠানগুলোর কয়েকশ শিক্ষার্থী ছাড়াও শিক্ষক, অভিভাবকরা মানববন্ধনে অংশ নেন।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে জাহান মঞ্জিলের একটি কক্ষ থেকে তাসনিয়া হোসেন অদিতার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। সে নোয়াখালী সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। মৃতদেহটি অর্ধনগ্ন, গলা ও দুই হাতের রগ কাটা অবস্থায় বিছানায় পড়ে ছিল। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে তার কোচিং শিক্ষক আবদুর রহিম রনিকে আটক করে পুলিশ। শনিবার বিকালে সিনিয়র চিফ জুডিশিয়াল ম্যজিস্ট্রেটের আদালতে হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন রনি।

advertisement