advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

যে কারণে মেজর শওকতকে ধন্যবাদ দিলেন সিয়াম

বিনোদন ডেস্ক
৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৯:৩০ পিএম | আপডেট: ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ০৯:৩০ পিএম
মেজর শওকতের সঙ্গে সিয়াম। ছবি: ফেসবুক থেকে নেওয়া
advertisement

র‍্যাবের দুঃসাহসিক অভিযান নিয়ে নির্মিত ‘অপারেশন সুন্দরবন’ দারুণভাবে গ্রহণ করেছে দর্শক। যার ফলে মুক্তির দ্বিতীয় সপ্তাহে বেড়েছে প্রেক্ষাগৃহের সংখ্যা। বর্তমানে সিনেমাটি ৪৫টি প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শিত হচ্ছে।

দীপঙ্কর দীপন পরিচালিত এই সিনেমায় ‘মেজর সায়েম সাদাত’ চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসা কুড়িয়েছেন চিত্রনায়ক সিয়াম। কিন্তু কীভাবে মেজর সায়েম হয়ে উঠলেন তিনি? সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ সংক্রান্ত এক পোস্ট দিয়েছেন সিয়াম। আর তাতেই জানা গেল উত্তর।

advertisement

সিয়াম জানিয়েছেন, তাকে মেজর সায়েম সাদাত হয়ে উঠতে যে মানুষটি সাহায্য করেছেন তিনি র‍্যাবের অপারেশনস উইংয়ের উপপরিচালক মেজর শওকত। ৫৫তম বিএমএ লং কোর্সে কমিশন্ডপ্রাপ্ত ও দেশ-বিদেশে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত স্পেশাল ফোর্সের একজন চৌকস প্যারা কমান্ডো অফিসার মেজর শওকত।

advertisement 4

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দেওয়া পোস্টে সিয়াম লিখেছেন, ‘আমার পাশে দাঁড়ানো মানুষটাকে দেখে বোঝার উপায় নেই তার ভেতর কী অসীম বারুদের ফুলকি লুকিয়ে আছে! তার নাম মেজর মো. শওকতুল ইসলাম জেনিথ, যিনি না থাকলে ‘অপারেশন সুন্দরবন’ সিনেমায় মেজর সায়েম সাদাত হয়ে ওঠা অনেক বেশি কষ্টকর হতো।’

‘মেজর সায়েমের চরিত্রটি ফুটিয়ে তোলার জন্য সিনেমার পরিচালক এবং র‍্যাবের পক্ষ থেকে আমাকে যতগুলো রেফারেন্স পয়েন্ট দেওয়া হয়, তার মধ্যে অন্যতম ছিলেন শওকত ভাই।’

‘মেজর শওকতকে আমি আমার ট্রেনিংয়ের সময় পেয়েছি, শুটিংয়ের সময় পেয়েছি। খুব কাছ থেকে তাকে পর্যবেক্ষণ করার সুযোগ পেয়েছি। এই মানুষটার মধ্যে অন্যরকম একটা আকর্ষণ আছে, একটা অদ্ভুত ঔজ্জ্বল্য আছে, যেটা তার সঙ্গে মিশলে খুব সহজেই নজরে পড়ে। অথচ প্রথমবার তাকে দেখে মনে হওয়া স্বাভাবিক যে, এই মানুষটা কীভাবে এত বড় একটা টিমকে লিড দিচ্ছে! তাও যেনতেনভাবে নয়, একদম সামনে থেকে নেতৃত্ব দেওয়া। তার কমান্ডিংয়ের মধ্যেও আলাদা একটা ব্যাপার আছে, একটু লক্ষ্য করলেই সেটা চোখে পড়ে।’

‘একদম ট্রেনিং পিরিয়ড থেকেই শওকত ভাই আমাকে অনেক সাহায্য করেছেন। চরিত্র পর্দায় ফুটিয়ে তোলার জন্য যত রেফারেন্স প্রয়োজন, সেটা আমার সাথে তার অভিজ্ঞতার আলোকে শেয়ার করেছেন। প্রফেশনাল ডেকোরামের ভেতরে থেকেই অনেক তথ্য আমাকে দিয়েছেন, যেগুলো আমাকে এই চরিত্রটি ফুটিয়ে তুলতে সাহায্য করেছে।’

‘যারা অপারেশন সুন্দরবন দেখে ফেলেছেন, তারা নিশ্চয়ই দেখেছেন আমাদের সুন্দরবন স্কোয়াডে ডিএডি ওসমান সাহেব চরিত্রে যিনি অভিনয় করেছেন, যার পদবী জুনিয়র ক্যাটাগরির হলেও, চাকরির দিক থেকে তিনি অনেক সিনিয়র। তার সাথে মেজর সায়েমের একটা অদ্ভুত বন্ধুসুলভ সম্পর্ক তৈরি হয়। সেই সম্পর্কটা সিনিয়র-জুনিয়রের বেড়াজাল ভেঙে বাবা-ছেলের সম্পর্কের মতো আত্মীকরণ ঘটে। কিংবা সায়েম যেভাবে তার টিমকে লিড দিচ্ছে, বিভিন্ন জায়গায় আটকে যাচ্ছে, তখন আবার টিমের সবার সাথে আলোচনা করছে, নিজের সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিচ্ছে না, সবার মতামতই তার কাছে গুরুত্বপূর্ণ- এই ব্যাপারগুলো আমরা শওকত ভাইয়ের কাছ থেকে পেয়েছিলাম।’

সিয়াম আরও লিখেছেন, ‘র‍্যাবের ইউনিফর্ম পরা ছবিটি শুটিংয়ের সময় তোলা। তখন এই পোজে ছবি তোলার সময় শওকত ভাই বলেছিলেন, সিনেমাটা যখন মুক্তি পাবে, তখন আমরা একই পোজে আবার একটা ছবি তুলব। তারপর দুটোকে পাশাপাশি রেখে আমাদের জার্নিটার কথা মনে করব। গতকাল যখন শওকত ভাই এবং তার স্ত্রী যখন দর্শক হিসেবে আমাদের সিনেমা দেখতে এসেছিলেন, শো শেষ হওয়ার পরে আমরা ডানের এই ছবিটা তুলেছিলাম। এবং সত্যিই তখন আমরা আমাদের ট্রেনিং পিরিয়ড, আমাদের জার্নির গল্পগুলোই বারবার করছিলাম।’

‘আমি মেজর শওকতকে ধন্যবাদ দিতে চাই, আমাকে মেজর সায়েম হয়ে উঠতে সাহায্য করার জন্য। আপনি প্রচণ্ড মেধাবী এবং ত্যাগী একজন অফিসার, আপনার ও আপনার পরিবারের সর্বাঙ্গীন মঙ্গল ও সুস্থতা কামনা করছি। আপনিও আমাদের জন্য দোয়া রাখবেন। আবারও ধন্যবাদ, অপারেশন সুন্দরবন এবং আমাদের জীবনের গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশে পরিণত হওয়ার জন্য।’

অপারেশন সুন্দরবন সিনেমায় আরও অভিনয় করেছেন রোশান, নুসরাত ফারিয়া, মনোজ প্রামাণিক, রওনক হাসান, শিমুল, রাইসুল ইসলাম আসাদ, রিয়াজ, দর্শনা বণিক, তুয়া চক্রবর্তী, তানজিল তুহিন প্রমুখ।

advertisement