advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

ডেঙ্গুতে আরও তিন মৃত্যু
নিয়ন্ত্রণে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া জরুরি

২৪ নভেম্বর ২০২২ ১২:০০ এএম
আপডেট: ২৪ নভেম্বর ২০২২ ১২:৪১ এএম
advertisement

ডেঙ্গুর প্রকোপ কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ হচ্ছে না। দিন দিন হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা না নেওয়ার ফলে ডেঙ্গুতে মৃত্যু আগের সব রেকর্ড অতিক্রম করেছে। গত মঙ্গলবার দেশের ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের নিয়মিত প্রতিবেদনে জানা গেছে, সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন নতুন ৫১৫ রোগী। তাদের মধ্যে ঢাকায় ২৬৬ ও ঢাকার বাইরে ২৪৯ জন চিকিৎসাধীন। এ নিয়ে চলতি বছরের গত মঙ্গলবার পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত ২৩৭ জনের মৃত্যু হয়।

advertisement

দেশে ২০০০ সাল থেকে ডেঙ্গুর সংক্রমণ শুরু হলেও বেশি মৃত্যু ঘটে ২০১৯ সালে। অতীতের সব রেকর্ড এরই মধ্যে ছাড়িয়ে গেছে। অথচ ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন ডেঙ্গুর ভয়াবহতার দায় নিতে নারাজ। তা হলে কি তাদের এ নারাজের কারণেই এখন মৃত্যুর সংখ্যা আবার বাড়ছে? তারা সঠিক দায়িত্ব পালন করছেন না? তারা জনসেবার কথা বলে কখনই এভাবে দায় এড়াতে পারেন না। সারাবছর মশক নিধনে তাদের তৎপরতা চোখে পড়ার মতো ছিল না। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, দুই সিটি করপোরেশনের এ গাফিলতির খেসারত দিতে হচ্ছে নগরবাসীকে। বাসাবাড়িতে জমে থাকা স্বচ্ছ পানিতে এডিস মশার জন্ম হলেও মশক নিধনে সিটি করপোরেশন থেকে সচেতনতামূলক যে কর্মসূচি প্রতিবছর নেওয়া হয়, এবার তেমন কার্যক্রম ছিল না। ফলে এখন এই অবস্থায় এসে দাঁড়িয়েছে। ঢাকার বাইরে নাগরিকদের সচেতনতার অভাবে সবাই ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন। আর সে জন্য এখন নাগরিকদেরও সচেতন হতে হবে। নিজ নিজ আবাসস্থল ও এর আশপাশ এলাকা পরিচ্ছন্ন রাখার দায়িত্ব তাদেরই। সিটি করপোরেশনের মনে রাখতে হবে- দায় এড়ানোর কথা না বলে মানুষের জীবন রক্ষার জন্য যা যা প্রয়োজন, তা করা জরুরি। এটা মনে রাখতে হবে- শহর পরিচ্ছন্ন রাখার কাজটি একদিন বা দুদিনের নয়, এটি বছরের প্রতিদিনের। জনগণের দায়িত্ব হলো প্রতিটি পরিবার ও প্রতিষ্ঠান পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা রাখা।

advertisement 4
advertisement