advertisement
advertisement
advertisement

নেতাদের ছবিযুক্ত নানা রঙ্গের টি-শার্ট টুপি পড়ে মাঠে কর্মীরা

চট্টগ্রাম ব্যুরো
৪ ডিসেম্বর ২০২২ ০২:২০ পিএম | আপডেট: ৪ ডিসেম্বর ২০২২ ০২:২০ পিএম
নেতাদের ছবিযুক্ত নানা রঙ্গের টি-শার্ট টুপি পড়ে মাঠে কর্মীরা
advertisement

চট্টগ্রামের রেলওয়ের পলোগ্রাউন্ড মাঠে আজ রোববার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা। সেখানে তিনি চট্টগ্রামের ৩০টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন শেষে ভাষণ দেবেন। জনসভায় যোগ দিতে সকাল থেকে নিজ নেতার ছবিযুক্ত নানা রঙ্গের টি-শার্ট আর টুপি পড়ে, ব্যানার হাতে মিছিল নিয়ে জনসভাস্থলে উপস্থিত হচ্ছেন কর্মীরা। সেখানে নিজ নেতার শক্তি জানান দিতে কর্মীরা প্রতিযোগিতা করে দখল করছেন মাঠ। তবে দুপুর একটায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত কোন অপ্রতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। 

চট্টগ্রামের পলোগ্রাউন্ডে জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। নৌকার আদলে তৈরি করা হয়েছে মঞ্চ, যেটির দৈর্ঘ্য ৮৮ ফুট ও প্রস্থ ৪০ ফুট। মূল মঞ্চের সামনে থাকবে ১৬০ মিটার লম্বা একটি নৌকা। এই মঞ্চে একসঙ্গে ২০০ অতিথি বসতে পারবেন। সমাবেশস্থল ছাড়াও নগরীর নিউমার্কেট, কদমতলী, সিআরবি ও টাইগারপাসসহ আশপাশের এলাকায় ব্যবহার করা হয়েছে ৩০০ মাইক।

advertisement

প্রধানমন্ত্রী জনসভা থেকে চট্টগ্রামের ৩০টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। দুপুর দুইটায় হেলিকপ্টারে এম আজিজ স্টেডিয়ামে আসবেন প্রধানমন্ত্রী। আড়াইটায় সেখান থেকে গাড়িতে করে প্রধানমন্ত্রী পলোগ্রাউন্ড মাঠে চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় তার পৌঁছানোর কথা রয়েছে। ৩টায় প্রধানমন্ত্রী জনসভায় ভাষণ দেবেন বলে জানিয়েছেন দলীয় নেতাকর্মীরা ।

advertisement 4

সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নগরীর সিআরবি, পুরোনো রেলস্টেশন, টাইগারপাস দিয়ে নেতাকর্মীরা মিছিল করে, বাদ্য বাজিয়ে সমাবেশস্থলে আসছেন। তখন স্থানীয় নেতা থেকে শুরু করে উপজেলার নেতা ও সংসদ সদস্যেদের ছবিযুক্ত নানা রঙ্গের গেঞ্জি ও টুপি পড়তে দেখা গেছে কর্মীদের। সমাবেশস্থলে আসার আগে নেতা-কর্মী, সমর্থকেরা নগরীর পুরোনো রেলস্টেশন, টাইগারপাস, জমিয়াতুল ফালাহ, সিআরবি এলাকায় জড়ো হন। এসব স্থান থেকে মূলত তারা মিছিলসহকারে সমাবেশস্থলে আসছেন।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন উপজেলা থেকে নেতা-কর্মীরা বাস, ট্রাক, জিপ, টেম্পো, মিনিবাসসহ বিভিন্ন গাড়িতে এসেছেন। সকাল আটটায় চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলা থেকে পটিয়ার সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর অনুসারী, সকাল ১০টায় সন্দ্বীপের সংসদ সদস্য মো. মাহফুজুর রহমান মিতার ছবিযুক্ত টি-শার্ট পড়ে নেতাকর্মীরা সমাবেশে এসেছেন। শুধুই যে বিভিন্ন উপজেলার নেতাকর্মী সমাবেশে আগেভাগে যোগ দিচ্ছেন তেমন নয়, নগরীর লালখান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতা দিদারুল আলম মাসুমের অনুসারীরাও হলুদ টি-শার্ট পড়ে আর আওয়ামী লীগ নেতা হেলাল আকবর চৌধুরী বাবর, লিমনসহ সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ সালাম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এটিএম পেয়ারুল ইসলামের ছবিযুক্ত টি-শার্ট পড়ে সমাবেশে আসতে দেখা গেছে কর্মীদের।

চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এ সালাম বলেন, প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে চট্টগ্রামবাসী প্রস্তুত। আমার নিজ এলাকা থেকে ২০ হাজার লোক এসেছে। আরও আসছে। চট্টগ্রামের পটিয়ার সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের হুইপ সামশুল হক চৌধুরী বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে পটিয়ায় আট হাজার কোটি টাকার উন্নয়নকাজ হয়েছে। পটিয়ার মানুষ প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ। তাই ভোর থেকেই সবাই দল বেঁধে মিছিল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর জনসভায় হাজির হয়েছেন।

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক মন্ত্রী ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেন, ১০ বছর পর বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামে আসছেন। প্রধানমন্ত্রী জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু ও স্থানীয় ইস্যু নিয়ে কথা বলবেন। এ কারণে চট্টগ্রামবাসীর মাঝে উৎসাহ-উদ্দীপনা তৈরি হয়েছে।

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায় বলেন, প্রধানমন্ত্রীর জনসভা ঘিরে কঠোর নিরাপত্তা বলয় রয়েছে। জনসভা ও আশপাশে সাড়ে সাত হাজার পুলিশ সদস্য মোতায়েন রয়েছে। জনসভা ঘিরে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে।

advertisement